হায়দরাবাদের দোকান থেকে ১৬ লক্ষ টাকার আসল সোনা হাতিয়ে নকল গহনা দিয়ে চম্পট, এগরায় গ্রেপ্তার মহিলা ! - Newz Bangla

Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

হায়দরাবাদের দোকান থেকে ১৬ লক্ষ টাকার আসল সোনা হাতিয়ে নকল গহনা দিয়ে চম্পট, এগরায় গ্রেপ্তার মহিলা !

নিউজবাংলা ডেস্ক : হায়দরাবাদে সোনার দোকান থেকে প্রায় ১৬ লক্ষ টাকার সোনা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে পূর্ব মেদিনীপুরের এগরার এক মহিলাকে গ্রেপ্তার করল পুলিস। ওই ঘটনায় ধৃতের এক পুরুষসঙ্গী পলাতক। তার খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে হায়দরাবাদ প…

 


নিউজবাংলা ডেস্ক : হায়দরাবাদে সোনার দোকান থেকে প্রায় ১৬ লক্ষ টাকার সোনা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে পূর্ব মেদিনীপুরের এগরার এক মহিলাকে গ্রেপ্তার করল পুলিস। ওই ঘটনায় ধৃতের এক পুরুষসঙ্গী পলাতক। তার খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে হায়দরাবাদ পুলিস। সোমবার ওই মহিলাকে এগরা থানায় তিন ঘণ্টার বেশি সময় জেরা করার পর গ্রেপ্তার করা হয়। এগরা থানার আইসি বিশ্বজিৎ মুখোপাধ্যায় বলেন, সোনা হাতানোর ঘটনায় হায়দরাবাদ পুলিস একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

জানা গিয়েছে, এগরাশহরের ৮নম্বর ওয়ার্ডেরবাসিন্দা ওই মহিলাও তার এক পুরুষসঙ্গী হায়দরাবাদে সোনার কাজ করত। তারা দোকান থেকে সোনার বাট নেওয়ার পর চাহিদা অনুযায়ী নকশা সহ অলঙ্কার বানাত। ওইদু’জন সোনার বাট নিয়ে গয়না তৈরির পর নকল সোনার অলঙ্কার জমা রেখে প্রায় ১৬লক্ষ টাকার সোনা নিয়ে চম্পট দেয়। মাসখানেক আগে এই ঘটনা ঘটে।

সিসি ক্যামেরার ফুটেজ ও অন্যান্য পরিচয়পত্র দেখে থানায় এনিয়ে অভিযোগ করেন প্রতারিত স্বর্ণ ব্যবসায়ী। তারপর হায়দরাবাদ পুলিস ঘটনার তদন্তে নামে। তাতে এগরা শহরের দু’জনকে সন্দেহ করে ভিনরাজ্যের পুলিস এগরা পুলিসের সঙ্গে যোগাযোগ করে। রবিবার রাতে হায়দরাবাদ পুলিস এগরা থানায় পৌঁছয়। তারপর সোমবার সকালে ওই মহিলাকে বাড়ি থেকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে জেরা করার পর গ্রেপ্তার করা হয়।

মহিলাকে জেরা অপর অভিযুক্তের পূর্ণাঙ্গ তথ্য জোগাড় করেছে পুলিস। আপাতত অভিযুক্ত ব্যক্তি পলাতক। এগরার এসডিপিও মহম্মদ বদিউজ্জামান বলেন, হায়দরাবাদ পুলিস এগরায় আসার পর আইসির সঙ্গে যোগাযোগ করে। নিয়ম অনুযায়ী উর্ধতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে আইসি থানার একজন সাব ইন্সপেক্টরকে ওই টিমের সঙ্গে ট্যাগ করে দেন। এদিন এক মহিলাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গতঃ পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কমপক্ষ্যে ৩০ হাজারের বেশি বাসিন্দা ভিন রাজ্যে সোনার কাজ করেন। কিন্তু এ ধরনের ঘটনায় পরিযায়ী। শ্রমিকদের বিশ্বাসযোগ্যতা নষ্ট হয়। লকডাউনে পরিযায়ী শ্রমিকরা দলবেঁধে বাড়ি ফিরে এলেও আবারও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে তাঁরা ফিরে গিয়েছেন। এভাবে সোনা লুট করে বাড়ি চলে আসার ঘটনায় কেউ রেহাই পাবে না বলে জেলা পুলিসের সাফ বক্তব্য। জেলা পুলিসের পক্ষ থেকে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের জন্য ভিনরাজ্যের পুলিসকে পূর্ণ সহযোগিতা করা হয়েছে।

--সংবাদ সূত্র, বর্তমান পত্রিকা

মোবাইলে নিউজ আপডেটপেতে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যোগ দিন, ক্লিক করুন Whatsapp

No comments