প্রধান, উপ-প্রধানদের কম্পিউটার পাঠ, পঞ্চায়েতকে ডিজিটাল যুগের উপযোগী করে তুলতে উদ্যোগী রাজ্য ! - Newz Bangla

Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

প্রধান, উপ-প্রধানদের কম্পিউটার পাঠ, পঞ্চায়েতকে ডিজিটাল যুগের উপযোগী করে তুলতে উদ্যোগী রাজ্য !

নিউজবাংলা ডেস্ক : এবার রাজ্যের সমস্ত গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ও উপপ্রধানের কম্পিউটার শিক্ষায় হাতেখড়ি হতে চলেছে। পঞ্চায়েত দপ্তর থেকে ইতিমধ্যেই বিজ্ঞপ্তি জারি করে বিষয়টি অবগত করেছে প্রতিটি জেলাকে। প্রশিক্ষণের দায়িত্ব পেয়েছে ও…

 


নিউজবাংলা ডেস্ক : এবার রাজ্যের সমস্ত গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ও উপপ্রধানের কম্পিউটার শিক্ষায় হাতেখড়ি হতে চলেছে। পঞ্চায়েত দপ্তর থেকে ইতিমধ্যেই বিজ্ঞপ্তি জারি করে বিষয়টি অবগত করেছে প্রতিটি জেলাকে। প্রশিক্ষণের দায়িত্ব পেয়েছে ওয়েবেল। পঞ্চায়েতের কাজকর্ম এখন অনেকটাই অনলাইনে হয়ে গিয়েছে।

ডিজিটাল যুগের সঙ্গে পাল্লা দিতে প্রযুক্তির ব্যবহার বেড়েছে অনেকটাই। তার সঙ্গে মানিয়ে চলতেই সরকারের এই নয়া উদ্যোগ। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মে মাসের শেষ সপ্তাহে এই প্রশিক্ষণ শুরু হবে। জুনের মধ্যেই সবাই যাতে কম্পিউটারের বুনিয়াদি বিদ্যা শিখে নিতে পারেন জেলা প্রশাসনকে সেটা দেখতে হবে।

সমস্ত প্রধান ও উপপ্রধান দু’দিনের প্রশিক্ষণ পাবেন বলে ঠিক হয়েছে। তবে এই প্রশিক্ষণ সূচি থেকে আপাতত থাকছে দার্জিলিং 3 কালিম্পং জেলা। অধিকাংশ জেলার পঞ্চায়েত প্রশিক্ষণ কেন্দ্রকে কর্মসূচি গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রশিক্ষণ আয়োজনের খরচ প্রত্যেক জেলাকে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। সব এই বেসিক নিয়মে প্রশিক্ষণ হলেও বাদ থাকছে আলিপুরদুয়ার, ঝাড়গ্রাম ও পশ্চিম বর্ধমান।

এই তিন জায়গায় ট্রেনিং হবে নন-রেসিডেনশিয়াল হিসেবে। এজন্য প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ভাড়া নেবে ওয়েবেল৷ পরিকাঠামো ও প্রশিক্ষণের সঙ্গে যুক্ত যাবতীয় সাহায্য সংশ্লিষ্ট জেলাকেই করতে হবে। কী কী শেখানো হবে? আধিকারিকরা বলেন, কম্পিউটার চালাবার ন্যূনতম পাঠই দেওয়া হবে৷ এছাড়া কম্পিউটার মারফত দৈনন্দিন কাজের জরুরি বিষয়গুলিও শেখানো হবে প্রধানদের।

পঞ্চায়েত কর থেকে ট্রেড লাইসেন্সের আবেদন জমা পর্যন্ত ‘বহু কাজই এখন অনলাইনে হয়ে থাকে। ধীরে ধীরে আরও অনেক বিষয় ডিজিটাল মাধ্যমে বাধ্যতামূলক হয়ে যাবে। তাই গ্রাম পঞ্চায়েতের শীর্ষব্যক্তিরা যদি এখন থেকেই কম্পিউটারের সাধারণ ও জরুরি বিষয়গুলি আয়ত্ত না করেন, তাহলে স্থানীয় প্রশাসন পরিচালনার দুর্বলতাগুলি দূর হবে না।

উদ্যোগটি সম্পর্কে কী বলছেন প্রধানরা? বারুইপুরের শিখরবালি-২ গ্রাম পঞ্চয়েতের প্রধান মেনকা নস্কর বলেন, 'খুবই ভালো পদক্ষেপ৷ এই ট্রেনিং হলে কাজের অনেক সুবিধা হবে। আর কোনও সমস্যায় পড়তে হবে না। শঙ্করপুর-২ পঞ্চায়েতের উপপ্রধান দীপক নস্করের বক্তব্য, এই কর্মসূচিতে উপপ্রধানরাও গুরুত্ব ভালো হল। এটা সময়োপযোগী এবং খুবই কার্যকরী পদক্ষেপ৷ এতে পঞ্চায়েতের কাজ নিজেদের মতো করে এগিয়ে নিয়ে যেতে সবারই সুবিধা হবে।

সংবাদ সূত্র - বর্তমান

মোবাইলে নিউজ আপডেটপেতে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যোগ দিন, ক্লিক করুন Whatsapp

No comments