"নন্দীগ্রামে এখনও কিছু কুকুর ঘেউ ঘেউ করছে" শহীদ দিবসের মঞ্চে তীর্যক মন্তব্য শুভেন্দুর ! - Newz Bangla

Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

"নন্দীগ্রামে এখনও কিছু কুকুর ঘেউ ঘেউ করছে" শহীদ দিবসের মঞ্চে তীর্যক মন্তব্য শুভেন্দুর !

নন্দীগ্রাম, পূর্ব মেদিনীপুর : নন্দীগ্রামের সোনাচূড়ায় শহীদ  দিবসের মঞ্চে এসে নাম না করেই বিরোধী তৃণমূলের নেতাদের কুকুরের সঙ্গে তুলনা করলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। শুভেন্দুর উক্তি, "পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে এখনও কিছু…


নন্দীগ্রাম, পূর্ব মেদিনীপুর : নন্দীগ্রামের সোনাচূড়ায় শহীদ  দিবসের মঞ্চে এসে নাম না করেই বিরোধী তৃণমূলের নেতাদের কুকুরের সঙ্গে তুলনা করলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। শুভেন্দুর উক্তি, "পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে এখনও কিছু কুকুর ঘেউ ঘেউ করছে, ওদের আমি পরিষ্কার করে দেব। পরের বছর ওরা আর থাকবে না"। শুভেন্দুর হুংকার, "পরিষ্কার কিভাবে করতে হয় আমি জানি। আশিভাগ করে দিয়েছি, জাহাজ বাড়ির মালিককেই দেখুন। ভূমি উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটির নেতা এখন ভো কাট্টা। হাইকোর্টে পার করে এখন সুপ্রিম কোর্টে দৌড়াচ্ছে। এরপর আর কোথায় কোথায় দৌড় করাই দেখুন"

প্রসঙ্গতঃ ২০০৭ সালে আজকের দিনে ৭ জানুয়ারী ভোরের দিকে নন্দীগ্রামের সোনাচূড়ায় জমি অধিগ্রহণ বিরোধী আন্দোলনকারীদের ওপর ব্যাপক গুলি বোমা নিয়ে হামলা চালিয়ে ভরত, সেলিম ও বিশ্বজিৎকে নৃশংসভাবে খুন করেছিল তথাকথিত সিপিএমের হার্মাদ বাহিনী। সে সময় শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল নেতা হিসেবে জমি আন্দোলনকারীদের সঙ্গে দাঁড়িয়েছিলেন। এই দিনটির স্মরণে শুভেন্দুর নেতৃত্বে প্রতিবছর ভূমি উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটির ব্যানারে শহীদ দিবস পালন হয়ে আসছিল।

কিন্তু ২০২০-এর ডিসেম্বরে শুভেন্দু বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই বিভক্ত হয়ে পড়ে এখানকার শহীদ দিবসের অনুষ্ঠান। তৃনমূল নেতারা শুভেন্দুর হাতে গড়া শহীদ মিনারের পরিবর্তে আলাদা করেই দিনটিকে পালন করতে শুরু করে। অন্যদিকে শুভেন্দু আলাদা শহীদ দিবস পালন করতে গেলে তাঁকে বাধা দেওয়া হয়। ২০২১-এর ৭ জানুয়ারী তৃণমূলের প্রবল বাধায় বাধ্য হয়েই শুভেন্দুকে আগের দিন গভীর রাতে এসে শহীদ বেদিতে মালা দিতে হয়। তবে গত বিধানসভা ভোটে নন্দীগ্রামে মমতাকে হারিয়ে আবারও আক্রমণাত্মক শুভেন্দু।

আজকের সভায় দাঁড়িয়ে শভেন্দুর মন্তব্য, "২০২১ সালে যত গুন্ডা, হাতকাটা, আঙুল কাটা, গড়চক্রবেড়িয়া  থেকে আনা অসামাজিক লোককে জড়ো করে আমাকে বাধা দেওয়া হল। আমি বাধ্য হয়েছিলাম আগের রাতে এসে শহীদ বেদীতে মালা দিতে। কিন্তু মাত্র একবছরের মধ্যে পরিস্থিতি পাল্টে গেল। দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখুক এই কানকাটা পার্টির পঞ্চায়েতের চুরির টাকায় বড়লোকি দেখানো, সাধারণ মানুষের টাকা লুট করে নেওয়া  চোরগুলো। যাদের পেটে ধাক্কা দিলে আমার দেওয়া ভাত বেরবে, যারা একবছর আগে আমাকে বাধ্য করেছিল রাতে আসতে তারা এখন সব গায়েব"।

শুভেন্দুর মতে, "সোনাচূড়া আমাকে লিড দিয়ে জিতিয়েছে। হৃদয়ে যে আছে তাকে আমরা ভোট দেব। এই পুলিশগুলো যাদের এখন পাহারা দিচ্ছে তারা ২০০৭ সালে কোথায় ছিল। দেহ তুলতে পারছিল না, আমি তুলে এনেছিলাম। সিবিআই অলরেডি ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় চার্জশিট দিয়েছে ১১ জনের নামে, বাকীগুলোকেও তুলব। উত্তর প্রদেশে যোগী আদিত্যনাথ ফিরে আসার পর দেখবেন এরা সব পালাবে"।

আজ তৃণমূলের তরফেও সোনাচূড়ার ভাঙভেড়্যা ব্রিজের কাছে শহীদ দিবস পালিত হয়। আবু তাহের, ফিরোজা বিবি, তৃণৃূলের তমলুক সাংগঠনিক জেলার সভাপতি দেবপ্রসাদ মন্ডল এই সভায় নেতৃত্ব দিলেও মমতার নির্বাচনী এজেন্ট সেক সুফিয়ানকে এদিনের শহীদ দিবসের মঞ্চে দেখা যায়নি। তৃণমূলের শহীদ দিবসে আগের মতোই জমায়েত হলেও লক্ষণীয় ভাবে শুভেন্দুর মঞ্চে গতবারেী তুলনায় ভীড় অনেকটাই বেশী ছিল বলেই স্থানীয়দের দাবী। সেইসঙ্গে আজ শুভেন্দু শহীদ মিনারে যাওয়ার পথে তাঁকে লক্ষ করে কটুক্তি করা হয় বলেও অভিযোগ।

No comments