Suvendu Adhikary : নন্দীগ্রামের প্রতিটি মন্দিরে ২৪ ঘন্টা নজরদারীর উদ্যোগ, সৌজন্যে সনাতনের সেবক শুভেন্দু ! - Newz Bangla

Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

Suvendu Adhikary : নন্দীগ্রামের প্রতিটি মন্দিরে ২৪ ঘন্টা নজরদারীর উদ্যোগ, সৌজন্যে সনাতনের সেবক শুভেন্দু !

নন্দীগ্রাম, পূর্ব মেদিনীপুর : এবার নন্দীগ্রাম বিধানসভা এলাকায় প্রতিটি মন্দিরে চলবে ২৪ ঘন্টার নজরদারী। প্রতিটি মন্দিরে মাইকে বাজবে হরিনাম সংকীর্তন, গীতার স্তোত্র, সৌজন্যে সনাতনের সেবক শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্যের বিরোধী দলনেতা তথা নন…

 


নন্দীগ্রাম, পূর্ব মেদিনীপুর : এবার নন্দীগ্রাম বিধানসভা এলাকায় প্রতিটি মন্দিরে চলবে ২৪ ঘন্টার নজরদারী। প্রতিটি মন্দিরে মাইকে বাজবে হরিনাম সংকীর্তন, গীতার স্তোত্র, সৌজন্যে সনাতনের সেবক শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্যের বিরোধী দলনেতা তথা নন্দীগ্রামের বিধায়কের দাবী, দুষ্কৃতীদের হাত থেকে মন্দিরকে রক্ষা করার জন্যই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

বুধবার প্রজাতন্ত্র দিবসে রেড রোডে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ডাক না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ শুভেন্দু শেষ পর্যন্ত নন্দীগ্রামেই দিনটিকে ধূমধাম করে পালন করেন। সেই মঞ্চ থেকেই নন্দীগ্রামের ১০টি মন্দিরে আনুষ্ঠানিক ভাবে সিসিটিভির উদ্বোধন করেন শুভেন্দু।

পরে শুভেন্দু জানান, "আগামী ৬ মাসের মধ্যে নন্দীগ্রামের সমস্ত মন্দিরকেই সিসিটিভির আওতায় চনা হবে। নন্দীগ্রাম বিধানসবার দুই ব্লকের ১৭টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় যেতগুলে মন্দিরে বিদ্যুৎ সংযোগ রয়েছে সেখানেই বসবে সিসিটিভি"। শুভেন্দুর যুক্তি, "নন্দীগ্রামে নানান ধর্মের মানুষের বসবাস। এই অবস্থায় কোনও মন্দিরে নাশকতামূলক কাজকর্ম ঘটিয়ে এলাকায় অশান্তি ছড়ানোর সুযোগ যাতে দুষ্কৃতীরা না পায় তার জন্যই আগাম সতর্কতা হিসেবে এই উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে"।

শুভেন্দু আরও জানান, "এখন থেকে নন্দীগ্রামের প্রতিটি মন্দিরে সকাল ও বিকেলে শব্দ দূষণ না করে মাইকে হরিনাম সংকীর্তন, ভাগবৎ কথা, বাবা বিশ্বনাথের আরাধনা প্রভৃতি বাজানো হবে। তার জন্য প্রতিটি মন্দিরে মাইক সেটও বিতরণ শুরু হল আজ থেকে। আগামী দিনে এলাকার সমস্ত মন্দিরেই মাইকে ধর্মীয় গান বাজানো হবে"। নিজেকে সনাতনের সেবক দাবী করে আজ এলাকার ২০ জনকে খোল বিতরণ করেন তিনি। শুভেন্দু জানান, "চারিদিকে খোল নিয়ে সনাতন ধর্মের প্রচার করবেন এই এলাকাবাসীরা"।

শুভেন্দুর মন্তব্য, "আজ প্রজাতন্ত্র দিবস। এদিনটি দেশকে ভালোবাসার জন্য"। এরপরেই শুভেন্দুর উক্তি, "আমি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়েছি, কারন আমার কাছে দেশ বড়। বিজেপি দলের মূল এজেন্ডা আগে দেশ তারপর বাকী সব কিছু। আর তৃণমূল বলে চারটে রাজধানী চাই, শুধু দিল্লি দিয়ে হবে না। আগে পিসি ভাইপো, তারপর দল, বামেরা বলে আগে দল পরে দেশ, আর কংগ্রেস বলে আগে গান্ধী পরিবার, তারপর দল, শেষে দেশ"। এবারের প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে ডাক না পেয়ে ক্ষুব্ধ শুভেন্দুর উক্তি, "স্বাধীনতার পর প্রথমবার বিরোধী দলনেতা ডাক পেলেন না রেড রোডের অনুষ্ঠানে। গতবারও আব্দুল মান্নান ডাক পেয়েছিলেন। আমি মমতাকে হারিয়েছিলাম বলেই অনুষ্ঠানে আমাকে ডাকা হল না", মন্তব্য করেছেন শুভেন্দু।


No comments