Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

মুখ্যমন্ত্রীর সফরের আগেই পূর্ব মেদিনীপুর জেলা সভাপতি পদ থেকে অপসারিত শিশির অধিকারী !

তমলুক, পূর্ব মেদিনীপুর : আগামী ১৮ জানুয়ারী তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রাম সফরে আসার আগেই দলের জেলা সভাপতি পদ থেকে অপসারিত হলেন শিশির অধিকারী। বুধবার তৃণমূলের পূর্ব মেদিনীপুর জেলা কোর কমিটিতে ব্যাপক রদবদল ঘটানো হয়েছে…

 

তমলুক, পূর্ব মেদিনীপুর : আগামী ১৮ জানুয়ারী তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রাম সফরে আসার আগেই দলের জেলা সভাপতি পদ থেকে অপসারিত হলেন শিশির অধিকারী। বুধবার তৃণমূলের পূর্ব মেদিনীপুর জেলা কোর কমিটিতে ব্যাপক রদবদল ঘটানো হয়েছে। নতুন কমিটিতে দল পরিচালনার দায়িত্ব তুলে দেওয়া হল বর্ষীয়ান নেতা এবং মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রের হাতে।

তবে তৃণমূলের অভিভাবক হিসেবে নব গঠিত জেলা কোর কমিটিতে এখনও চেয়ারম্যান পদে শিশিরবাবুকেই রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দলের রাজ্য নেতৃত্বরা। সৌমেন মহাপাত্র জানান, দলনেত্রী তাঁর ওপর আস্থা রেখে সামনের নির্বাচনে দলের ভিত শক্ত করতে চেয়েছেন। শিশিরবাবু দলের অভিভাবক হিসেবে রয়েছেন। তাঁকে প্রণাম জানিয়েই জেলা সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করতে চান সৌমেনবাবু। সেই সঙ্গে তাঁর বার্তা, এই মুহূর্তে সাম্প্রদায়িক সমস্ত শক্তির বিরুদ্ধে লড়াইটাই তাঁদের মূল লক্ষ্য। ছেলে শুভেন্দু যেখানে বিজেপির মুখ সেখানে শিশিরবাবুর নেতৃত্বে তৃণমূলে লড়াইয়ের বার্তা দিয়ে সৌমেন-এর মন্তব্য, “আমাদের লড়াই একটা দলের বিরুদ্ধে। সেই দলে অনেক মুখ রয়েছে। কোনও ব্যক্তির বিরুদ্ধে তৃণমূলের লড়াই নয়। তাই শিশির অধিকারীর পরামর্শ মাথায় নিয়েই দলের সাংগঠনিক দিকটিকে এগিয়ে নিয়ে যাব” জানালেন সৌমেনবাবু। শিশিরবাবু ছাড়াও নব গঠিত কোর কমিটি থেকে বাদ পড়েছেন অধিকারী জেলা কো-অর্ডিনেটর আনন্দময় অধিকারী এবং স্পোকসপার্সন মধুরিমা মন্ডল। এঁরা দু’জনেই শুভেন্দু’র অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ হিসেবেই জেলা রাজনৈতিক মহলে পরিচিত ছিলেন। তাঁদের জায়গায় এবারের কোর কমিটিতে জায়গা পেলেন শুভেন্দু বিরোধী হিসেবে পরিচিত একাধিক মুখ। এঁরা হলেন গৌর মোহন দাস ঠাকুর, দেবপ্রসাদ মন্ডল, সেক সুপিয়ান, মামুদ হোসেন, তাপস মাইতি, কাজল বর্মণ এবং পার্থ সারথি মাইতি। প্রসঙ্গতঃ গতকাল মঙ্গলবার দিঘা শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যানের পদ থেকে শিশির অধিকারীকে অপসারণ করা হয়েছিল। তখনই জল্পনা শুরু হয়েছিল জেলা সভাপতি পদ থেকেও তসঁকে বাদ দেওয়া হতে পারে। তৃণমূলের কো-অর্ডিনেটর অখিল গিরি জানিয়েছিলেন, শারীরিক অসুস্থতার জন্য শিশিরবাবু বেশ কিছুদিন দলের কাজকর্ম করছেন না। তাই জেলা সভাপতি পদে বদল আনার জন্য দলের ওপর তলায় জানানো হয়েছে বলেও দাবী করেছিলেন তিনি। আজ নতুন কমিটি থেকে শিশিরবাবুকে সভাপতি পদ থেকে সরানো হলেও চেয়ারম্যানের পদে এখনও সেই সিনিয়র অধিকারীতেই ভরসা রাখছে দল। এই প্রসঙ্গে অখিলবাবুর যুক্তি, দলের নেতৃত্বরা অনেক ভাবনা চিন্তা করেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এবার নতুন চেয়ারম্যান দলের যাবতীয় বিষয়ে বক্তব্য জানাবেন বলেই দাবী রামনগরের বিধায়কের।

No comments