Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

১০৫ কিমি সাইকেল চালিয়ে ছেলেকে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে দিয়ে নজির গড়লেন বাবা !

 

নিউজবাংলা ডেস্ক : করোনা রুখতে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এখনও আংশিক লকডাউন চলছে। তার জেরেই বিপাকে পড়েছিলেন মধ্যপ্রদেশের শোভরাম। গণপরিবহন চালু না থাকায় ভেস্তে যেতে বসেছিল ছেলের পরীক্ষা। তবে সেটা হতে দেননি শোভরাম। ১০৫ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে ছেলেকে তিনি পৌঁছে দিয়েছেন পরীক্ষাকেন্দ্রে।

ইচ্ছে থাকলেও সেভাবে পড়াশোনা শিখতে পারেননি শোভারাম। তাই পেশায় মজুর শোভারাম ছেলে আশিসের পড়াশোনায় কোনও খামতি রাখতে চাননি তিনি। শোভারামের কথায়, “ছেলের ক্লাস টেনের বোর্ডের সাপ্লিমেন্টারি পরীক্ষা ছিল।

আমাদের কাছে টাকাপয়সা নেই তেমন। কেউ সাহায্যও করেননি। কোনও ভাবেই বাইক জোগাড় করতেও পারিনি। তাই নিজেই সাইকেলে করে ছেলেকে নিয়ে বেরিয়ে পড়েছিলাম। কারণ জানতাম আমি যদি অসফল হই তাহলে আমার ছেলেটার একবছর নষ্ট হয়ে যাবে।”

মধ্যপ্রদেশ সরকারের ‘রুক জানা নেহি’ স্কিমের আওতায় বোর্ডের সাপ্লিমেন্টারি পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পেয়েছে আশিস। যারা প্রথমবার পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছে তাদের জন্য দ্বিতীয়বার সুযোগ দিচ্ছে মধ্যপ্রদেশ সরকার।

কোনও ভাবেই যেন ছেলের এই পরীক্ষা মিস না হয় সে জন্য মরিয়া ছিলেন শোভারাম। ঠিক করে নিয়েছিলেন যে ভাবেই হোক আশিসকে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছে দিতেই হবে। শোভারামের বাড়ি থেকে ১০৫ কিলোমিটার দূরে ধার এলাকায় ছিল আশিসের পরীক্ষাকেন্দ্র। ২-৩ দিন চালানোর মতো শুকনো খাবার নিয়ে বেরিয়ে পড়েন শোভারাম। 

সাইকেলে চড়ে ছেলেকে নিয়ে চলেছেন বাবা, দেখুন ভিডিওটি -

 

আশিসকে সময়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়াই ছিল তাঁর লক্ষ্য। সোমবার সকালে যাত্রা শুরু করেন বাবা-ছেলে। রাতে কয়েক ঘণ্টার জন্য থেমেছিলেন মানাওয়ার এলাকায়। তারপর আবার শুরু হয়েছিল সাইকেল যাত্রা। মঙ্গলবার পরীক্ষা শুরুর আগেই ছেলেকে নিয়ে গন্তব্যে পৌঁছে গিয়েছিলেন শোভারাম। এক বাবার অদম্য জেদের কাছে হার মেনেছিল সব প্রতিকূলতা।

সঠিক সময়ে পৌঁছে পরীক্ষা দিতে পেরে খুশি আশিসও। বারবারই কিশোর বলছে, “বাবার জন্যই সব সম্ভব হয়েছে।” পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত পরীক্ষাকেন্দ্রের কাছাকাছিই থাকবেন শোভারাম আর তাঁর ছেলে আশিস।

 #newzbangla #BengaliNews #NationalNews #নিউজবাংলা #Newsbangla #BengalUpdate #MadhyapradeshNews

No comments