Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

মধ্যযুগীয় বর্বরতা, কোলাঘাটে স্বামী বিয়োগে স্ত্রীর মাথার চুল কাটল গ্রামবাসীরা!

নিউজবাংলা ডেস্ক, পূর্বমেদিনীপুর : বিভিন্ন বিষয়ে প্রায়শই পরিবারে লেগে থাকত অশান্তি। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যেও চলত ঝামেলা। এরই মাঝে আচমকাই বাড়ির মধ্যে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় উদ্ধার হয় স্বামীর দেহ। অভিযোগ ঘটনাটি গ্রামের কাউকে না জানিয়…

নিউজবাংলা ডেস্ক, পূর্বমেদিনীপুর : বিভিন্ন বিষয়ে প্রায়শই পরিবারে লেগে থাকত অশান্তি। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যেও চলত ঝামেলা। এরই মাঝে আচমকাই বাড়ির মধ্যে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় উদ্ধার হয় স্বামীর দেহ। অভিযোগ ঘটনাটি গ্রামের কাউকে না জানিয়েই পুলিশে খবর দেয় স্ত্রী।

এরপর পুলিশ এসে রাতেই বাড়ি থেকে ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। কিন্তু দিনের আলো ফুটতেই ঘটনা জানাজানি হওয়ায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় গ্রামে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ওই ব্যক্তিকে মেরে ঝুলিয়ে দিয়েছে তাঁর স্ত্রী। এরপরেই স্ত্রীর ওপর চড়াও হয়ে তাঁকে ব্যাপক মারধর করে মাথার চুল কেটে নেয় গ্রামবাসীদের একাংশ।

চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের কোলাঘাট থানার কাঁউর চন্ডী গ্রামে। সূত্রের খবর, ওই গ্রামের যুবক সুব্রত দাস-এর সঙ্গে বিয়ে হয় স্থানীয় গোবরা গ্রামের সুপর্ণা দাসের সঙ্গে। কিন্তু বিয়ের পর থেকে প্রায়শই দাম্পত্য কলহ চলত ওই পরিবারে।

এরপর সুব্রত ও সুপর্ণার সংসারে আসে এক ফুটফুটে সন্তান। তারপর কিছুদিন সমস্যা থেমে থাকলেও তা পুনরায় মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে। বেশ কয়েকদিন আগে সালিশি সভায় সুব্রত সাথে সুপর্ণার তিক্ততা মিটেয়ে দেয় গ্রামের মোড়লরা।

কিন্তু এরপরেও সুব্রত তাকে মারধর করে বলে অভিযোগ করেন সুপর্ণা। সুপর্ণার অভিযোগ, গতকাল বুধবার রাতে সুপর্ণাকে সুব্রত মারধর করে, যা নিয়ে দু'জনের ব্যাপক অশান্তি হয়। পরে বাড়ির সবাই ঘুমিয়ে গেলে গভীর রাতে সুব্রত গলায় কাপড় জড়িয়ে আত্মহত্যা করে বলে অভিযোগ করেন সুব্রতর স্ত্রী।

সুপর্ণার অভিযোগ গ্রামের সকলকে ডাকলেও কেউ আসেনি। বাধ্য হয়ে বাপের বাড়িতে খবর দেয় সুপর্ণা। এরপর বাড়ি থেকে ছুটে আছে সুপর্ণার বাবা-মা ও বোন। সুপর্ণার বাবাকে দিয়ে পুলিশে খবর পাঠানো হয়। এবং গভীর রাতে পুলিশ এসে সুব্রতর দেহ থানায় নিয়ে আসে।

কিন্তু সকালে ঘটনা জানতে পেরেই এলাকাবাসীরা চড়াও হয় সুব্রতর বাড়িতে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, রাতের অন্ধকারে কাউকে না জানিয়ে থানায় যোগাযোগ করেন সুপর্ণার বাপের বাড়ির আত্মীয়-পরিজন। পুলিশ এসে কাউকে না জানিয়েই মৃতদেহ নিয়ে গিয়েছে।

ঘটনাটিকে ঘিরে উত্তপ্ত হতে থাকে কাঁউরচন্ডী গ্রাম। সুব্রত স্ত্রী সুপর্ণা এবং সুপর্ণা বাবা, মা ও বোনকে একটি ঘরে বন্দী রাখে এলাকাবাসীরা। সুবর্ণার চুল কেটে দেওয়া হয় এবং মানসিক অত্যাচার চালানো হয় তাঁর ওপর। খবর পেয়ে কোলাঘাট থানার পুলিশ গেলে পুলিশকে ঘিরে চলে  চরম বিক্ষোভ। যদিও কোলাঘাট থানায় এখনো কেউ অভিযোগ জানায়নি। এখনো পর্যন্ত এলাকায় উত্তপ্ত রয়েছে।

#newzbangla #purbamedinipur #bengalinews #নিউজবাংলা #kolaghatnews #BengalNews

No comments