Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

আমফানে ক্ষতির তালিকায় নজির বিহীন দুর্নীতি, ২০০ তৃণমূল নেতাকে শো'কজ নন্দীগ্রামে !

নিউজবাংলা ডেস্ক, পূর্ব মেদিনীপুর :আমফানে দুর্নীতির অভিযোগ ঘিরে গত কয়েক দিন ধরেই উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম বিধানসভা এলাকা। যেখানে ক্ষতিগ্রস্তের তালিকায় জায়গা হয়েছে তৃণমূল নেতা কর্মী, পঞ্চায়েতের জনপ্রতিনিধি ও ত…


নিউজবাংলা ডেস্ক, পূর্ব মেদিনীপুর : আমফানে দুর্নীতির অভিযোগ ঘিরে গত কয়েক দিন ধরেই উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম বিধানসভা এলাকা। যেখানে ক্ষতিগ্রস্তের তালিকায় জায়গা হয়েছে তৃণমূল নেতা কর্মী, পঞ্চায়েতের জনপ্রতিনিধি ও তাঁদের আত্মীয়দের নাম। এঁদের মধ্যে অনেকেই ইতিমধ্যে টাকা তুলে নিয়েছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।

এমনই শতাধিক ঘটনার অভিযোগে গত কয়েকদিন ধরে নন্দীগ্রামে জোরদার বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু হয়েছে। সেই ঘটনার তদন্তে নেমেই চাঞ্চল্যকর তথ্য জানতে পারে তৃণমূল জেলা নেতৃত্ব। গোটা নন্দীগ্রাম জুড়েই ক্ষতিগ্রস্ত নাম দিয়ে টাকা তুলে নিয়েছেন বহু প্রভাবশালী ও ধনী ব্যক্তিত্ব।

এই ঘটনার পরেই নন্দীগ্রামের প্রায় ২০০ নেতা, জনপ্রতিনিধিদের শো'কজ করা হয়েছে তৃণমূলের তরফ থেকে। এই বিষয়ে তৃণমূলের নন্দীগ্রাম ব্লক সভাপতি মেঘনাথ পাল জানান আমফানের তালিকায় ব্যাপক দুর্নীতি, স্বজনপোষণ করা হয়েছে কেন তার কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।

আগামী কালের মধ্যে কারণ দর্শাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শো'কজের যে উত্তর দেবে তার পর্যালোচনা করার পরেই আগামী মঙ্গলবার জরুরী বৈঠকে বসবে দলীয় নেতৃত্বরা। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যে শো'কজ পেয়ে প্রায় ৫৫ জন ২০ হাজার টাকা করে ফেরৎ দিয়েছেন। তবে এমন ঘটনা প্রকাশ্যে আসায় ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে গোটা এলাকায়।  

তৃণমূলের পূর্ব মেদিনীপুর জেলা সভাপতি শিশির অধিকারী জানান, এটা একটা ঐতিহাসিক ঘটনা। যেখানে কেন্দ্র কোনও টাকা দেয়নি সেখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মাত্র ১০ দিনে ক্ষতিপূরণ দিলেন। জেলা প্রশাসন থেকে দ্রুত তালিকা দেওয়া হয়েছে। সেই ভিত্তিতেই টাকা যথারীতি এসেছে।

মুখ্যমন্ত্রী মানুষকে সাহায্য করতে বলেছিলেন। কোনও প্রকার দুর্নীতি হলে তা বরদাস্ত করা হবে না। মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর এলাকায় মন্ত্রীর নির্দেশে প্রতিটি নামের স্ক্রিনিং করা হয়েছে।

যারা মিথ্যে তথ্য দিয়ে টাকা তুলেছেন তাঁদের সমস্ত টাকা ফেরৎ দিতে হবে। যাদের পাকা বাড়ি আছে, যারা পাওয়ার যোগ্য নয়, যারা জনপ্রতিনিধি তাদের টাকা ফেরৎ দিতেই হবে। এমন নেতাদের পদ থেকে সরাব বলেও হুঁশিয়ারি দেন শিশিরবাবু।

এই ঘটনায় বিজেপি নেতা অভিজিৎ মাইতি'র অভিযোগ, নন্দীগ্রাম জুড়ে বহু দুর্নীতি হয়েছে। তারজন্যই সর্বত্র ব্যাপক প্রতিবাদ আন্দোলন চলছে। এই আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে যতক্ষণ পর্যন্ত না দুর্নীতিবাজদের কড়া শাস্তি হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত এই আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে।

তথ্যসূত্র - নিউজ১৮বাংলা

No comments