Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

পুলিশের স্ত্রীকেই হেনস্থার অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে, চাকরী ছেড়ে সব্জি বেচেই বেশী সম্মান পেতাম, দাবী বাইপাশে আহত পুলিশ কর্মীর !

নিউজবাংলা ডেস্ক, কলকাতা : আজ লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে কলকাতার বাইপাসের ধারে নাকা চেকিংয়ের সময় এক বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় গুরুতর ভাবে জখম হন তিলজলা থানার পুলিশ কনস্টেবল তন্ময় দাস। গাড়িটি প্রায় পিষেই দিচ্ছিল ওই পুলিশ কনস্টেবলকে। এই ঘটনা…

নিউজবাংলা ডেস্ক, কলকাতা : আজ লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে কলকাতার বাইপাসের ধারে নাকা চেকিংয়ের সময় এক বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় গুরুতর ভাবে জখম হন তিলজলা থানার পুলিশ কনস্টেবল তন্ময় দাস। গাড়িটি প্রায় পিষেই দিচ্ছিল ওই পুলিশ কনস্টেবলকে। এই ঘটনায় দোষী ব্যক্তিদের ইতিমধ্যে পুলিশ হেফাজতে নিয়েছে তিলজলা থানা।

এই মামলার প্রকৃত গতিপ্রকৃতি কি তা জানতে তিলজলা থানায় ছুটে যান তন্ময়বাবুর স্ত্রী কাকলী দাস। অভিযোগ, থানায় যেতেই অভাবনীয় ভাবে অত্যন্ত দুর্ব্যবহার করা হয় কাকলীদেবীর ওপর। তাঁকে থানা থেকে যথেচ্ছ অপমান করে একপ্রকার তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে দাবী করেছেন কনস্টেবলের স্ত্রী।

কাকলীদেবী জানান, তিনি থানায় ঢুকতে গেলে তাঁকে বাধা দেওয়া হয়। নিজের স্বামীর পরিচয় দিলেও তাঁকে ভেতরে যেতে দেওয়া হয়নি। যারা তাঁর স্বামীকে প্রায় মেরেই ফেলছিল সেই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোন মামলা হয়েছে জানতে চাইলে তাঁকে দুর্ব্যবহার করে তাড়িয়ে দেওয়ার হয়েছে বলে দাবী কাকলীদেবীর।

এই সংক্রান্ত আরও পড়ুন - লকডাউনের কলকাতায় জয়ফুল রাইডিংয়ে বেপরোয়া যুবক, বাইপাসে কর্তব্যরত পুলিশকে চাপা দিয়ে পালানোর চেষ্টা !

তিনি জানান, "থানায় আমাকে ঢুকতে দিল না। কোনও মতে ঢুকতে দেবে না তাঁরা। জানতে চাইলাম, আপনারা কি অভিযোগ নেবেন? থানা থেকে আমাকে কতগুলো ধারা শোনান হল। এই ধারায় কি সাজা জানতে চাইলে প্রচন্ড ভাবে দুর্ব্যবহার করা হয়েছে। এরপর স্বামীকে চাকরী ছেড়ে দিতে বলব।"

এই ঘটনায় অত্যন্ত ক্ষুব্ধ কাকলীদেবী। তাঁর মতে যেখানে একজন কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীর স্ত্রীর সঙ্গেই এমন দুর্ব্যবহার করা হয় সেখানে পুলিশের চাকরী করা বৃথা বলেই মনে করেন তিনি। অন্যদিকে তিলজলা থানায় স্ত্রীর সঙ্গে দুর্ব্যবহারের ঘটনা জানতে পারেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন আহত কনস্টেবল তন্ময় দাস।

তন্ময়বাবুর আক্ষেপ, এমন চাকরী ছেড়ে সবজি বেচে খেলেই মানসম্মান থাকত। তাঁর মতে, আমরা খেটে মরছি। তাই ডিপার্টমেন্টের কাছে এমন ব্যবহার আশা করিনি। আমি চাইব তাঁদের শাস্তি হোক। আশংকা করছি, ডিপার্টমেন্টের থেকে নানা প্রেসার আসতে পারে।

মনে হয় চাকরীর থেকে সব্জি বেঁচে খেলে মনে হয় শান্তি পেতাম। আমি ডিপার্টমেন্টের কাছে গাল খাচ্ছি, পাবলিকের কাছে গাল খাচ্ছি। আমি ছেড়ে দেওয়ার পাত্র নই। এই অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তির দাবীতে লড়াই চালাব বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

তাঁর মতে, অনেক সময় বড়লোকদের ছেড়ে দেওয়া হয়। স্ত্রী শিক্ষিত বলেই সে থানা থেকে জানতে চেয়েছিল কি ধারায় মামলা হয়েছে। তাঁকে সহযোগিতা করার পরিবর্তে অত্যন্ত দুর্ব্যবহার করে থানা থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

এই ঘটনায় তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা তাপস রায় বেসরকারী টিভি চ্যানেলে মন্তব্য করেন, সবার সঙ্গে একটু ভালো ব্যবহার করা উচিত। মানুষের সঙ্গে শান্ত ভাবে ভালো ভাবে কথা বলুন এটাই বলব।

#newzbangla #KolkataNews #bengalinews #নিউজবাংলা #Lockdown2 #newsbangla

No comments