Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

কার্যকর হল কেন্দ্রের নির্দেশিকা, বন্ধ হল চাইনিজ অ্যাপ Helo, অন্যগুলোর দশাও শোচনীয় !

নিউজবাংলা ডেস্ক : গতকালই কেন্দ্রের সরকার নির্দেশ দিয়ে জানিয়ে দিয়েছিল, চিনের বিরুদ্ধে দেশ জুড়ে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করা হচ্ছে। ভারতে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে ৫৯টি চিনা অ্যাপ।যার মধ্যে রয়েছে এমন সব অ্যাপের নাম যারা মানুষের অজান্তেই …


নিউজবাংলা ডেস্ক : গতকালই কেন্দ্রের সরকার নির্দেশ দিয়ে জানিয়ে দিয়েছিল, চিনের বিরুদ্ধে দেশ জুড়ে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করা হচ্ছে। ভারতে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে ৫৯টি চিনা অ্যাপ।

যার মধ্যে রয়েছে এমন সব অ্যাপের নাম যারা মানুষের অজান্তেই তাঁদের জীবনের সঙ্গী হয়ে উঠেছিল। মোবাইলে মনোরঞ্জনের এক বিশেষ অধ্যায় হয়ে উঠেছিল অ্যাপগুলি। প্রত্যেকের কাজের ধরণ ছিল এক্কেবারে ভিন্ন।

যেমন ভিগো ভিডিও। যেখানে ভিডিও দেখার মজাই আলাদা। আবার যেমন জেন্ডার, উই চ্যাট, উইসি ব্রাউসার, ভাইরাস ক্লিনার, ডিইউ ব্যাটারি সেভার্‌, জনপ্রিয় টিকটক সহ আরও কত কি।

ঠিক এমনই একটি অ্যাপ হল Helo। সম্প্রতি এই অ্যাপের জনপ্রিয়তা ফেসবুককেও চাপে ফেলছিল। বিশেষ করে মনোরঞ্জন মূলক ভিডিও, ছবি, সংবাদ দ্রুত লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে পৌঁছে দিচ্ছিল এই অ্যাপটি।

আরও পড়ুন - আপনি কি এই চায়না অ্যাপগুলিতে আসক্ত ? তবে সাবধান, ভারতে এই অ্যাপ ব্যবহার এখন থেকে নিষিদ্ধ !

গতকাল কেন্দ্রের সরকার চিনা অ্যাপের বিরুদ্ধে ডিজিটাল স্ট্রাইক ঘোষণার পর সবার মুখে মুখে ফিরছিল, এই অ্যাপগুলি কি মোবাইল থেকে ডিলিট করতে হবে? অনেকেই তার আগে বিকল্প অ্যাপ হাতে চাইছিল।

তবে সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে রবিবার রাত্রি ১২টা নাগাদ নজরে এল আপনা থেকেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে Helo অ্যাপটি। পরিবর্তে অ্যাপের স্ক্রীনে ভেসে উঠছে একটি ম্যাসেজ "Dear user, we are in the process of complying with the Government of India's directive to block 59 apps. Ensuring the privacy and security of our Indian users remains our utmost priority".

অর্থাৎ " প্রিয় ব্যবহারকারী, আমরা 59 টি অ্যাপ্লিকেশন ব্লক করার জন্য ভারত সরকারের নির্দেশনা মেনে চলতে চলেছি। আমাদের ভারতীয় ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তা এবং সুরক্ষা নিশ্চিত করা আমাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হিসাবে রয়ে গেছে"।

অ্যাপ ডাউনলোডের উৎস প্লে স্টোর এবং আইওএস থেকেও একে একে অ্যাপগুলি দিনের বিভিন্ন সময়ে উধাও হয়ে গিয়েছে। নোটিশে জানানো হয়েছে, ভারত সরকার কর্তৃক যে অ্যাপ বন্ধের নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে সেই নির্দেশিকা মেনে ভারতীয় নাগরিকদের সুরক্ষা এবং তথ্য সম্পূর্ণ সুরক্ষিত রাখার ব্যবস্থা আমরা করতে চাই। তাই সরকারের সাথে এ বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ সিদ্ধান্তের পরই অ্যাপগুলি পুনরায় আসবে কিনা তা স্থির হবে।

টিকটক ইন্ডিয়ার প্রধান নিখিল গাঁধী জানান, ভারত সরকারের কাছে আমরা সবরকম ব্যাখ্যা দিতে প্রস্তুত। ব্যবহারকারীদের কোনো গোপন তথ্য এবং কোনকিছুই চিন কে সরবরাহ করা হয়না। ভারতের সার্বভৌমত্ব, অখণ্ডতা  এবং নিরাপত্তা যাতে বজায় থাকে সেই কথাই ভেবে এসেছে টিকটক ইন্ডিয়া।

প্রায় কয়েক কোটি মানুষ এই জনপ্রিয় অ্যাপটি ব্যবহারে তার জনপ্রিয়তা কুড়িয়েছেন। এই অ্যাপের মাধ্যমেই নিজেদের প্রতিভা তুলে ধরার মত প্ল্যাটফর্ম পেয়েছে। বর্তমানে শুধু সাধারণ নাগরিক নয় বিভিন্ন অভিনেতা, অভিনেত্রী, কোরিওগ্রাফার, খেলোয়াড় সবাই এই জনপ্রিয় অ্যাপের প্রতি আসক্ত। অবসর সময় কাটাতে এর জুড়ি মেলা ভার বলেই অনেকে দাবী করেছেন।

১৪ টি ভাষায় থাকা এই অ্যাপ সর্বত্রই খুব প্রশংসনীয়। যদিও টিকটক সংস্থা তথ্য চুরির বিষয়ে জানান, এখনও পর্যন্ত এইরকম কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তবে সাইবার দুনিয়া থেকে প্রতিটি টিকটক ব্যবহারকারীদের তথ্যগুলি আরও নিরাপদ রাখতে নতুন ভার্সান সহ কিছু অথেনটিকেশন ফ্যাক্টর যোগ করার কথা ভাবছে টিকটক এমনটাই জানা গিয়েছে।

No comments