Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

বাস মালিকদের ৩ মাস ভর্তুকি দেওয়ার সিদ্ধান্ত রাজ্যসরকারের, সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি !

নিউজবাংলা ডেস্ক : লকডাউনের ধাক্কা সামনে ধীরে ধীরে আনলক হচ্ছে রাজ্য। শহর কলকাতাতেও ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হওয়ার পথে জনজীবন। তবে শুধুমাত্র সরকারী বাস চালিয়ে শহরের বাসিন্দাদের কোনওভাবেই সচল রাখা সম্ভব হচ্ছে না। তাই বেসরকারী বাসগুলিকেও …


নিউজবাংলা ডেস্ক : লকডাউনের ধাক্কা সামনে ধীরে ধীরে আনলক হচ্ছে রাজ্য। শহর কলকাতাতেও ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হওয়ার পথে জনজীবন। তবে শুধুমাত্র সরকারী বাস চালিয়ে শহরের বাসিন্দাদের কোনওভাবেই সচল রাখা সম্ভব হচ্ছে না। তাই বেসরকারী বাসগুলিকেও পথে নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

সম্প্রতি দেশজুড়ে ডিজেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির জেরে একাধিক বাস মালিক সংগঠন ভাড়া বাড়ানোর পক্ষে সওয়াল করেছিলেন। তবে সাধারণ মানুষের ওপর চাপ কমাতে রাজ্য সরকার বাস মালিকদের সেই দাবীকে মান্যতা দিল না।

পরিবর্তে এবার বাস মালিকদেরই মাসিক ভিত্তিতে নগদ টাকা ভর্তুকি দেওয়ার পথেই হাঁটছে রাজ্য সরকার। শুক্রবার নবান্নে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করে জানান, আগামী ৩ মাস শহর কলকাতার প্রায় ৬ হাজার বাসকে আগামী ৩ মাস ধরে ভর্তুকি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, বিশেষজ্ঞ কমিটির দেওয়ার রিপোর্টের পরেই রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আগামী ৩ মাস ধরে ১৫ হাজার টাকা করে নগদ ভর্তুকি দেওয়া হবে বাস মালিকদের। সেই সঙ্গে বাসের কর্মীদের স্বাস্থ্যসাথীর আওতায় নিয়ে আসা হবে বলেও ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

যদিও বাস মালিক সংগঠনের একাংশের দাবী, বাস চালাতে গিয়ে গড়ে ৬ হাজার টাকা খরচ হয় এবং বাসের দৈনিক রোজগার গড়ে ৫ হাজার টাকা। ফলে প্রতিদিন তাঁদের ১ হাজার টাকা করে লোকসান গুনতে হচ্ছে।

অন্যদিকে জয়েন্ট সিন্ডিকেটের নেতা তপন ব্যানার্জী জানান, ভর্তুকির তুলনায় আমরা ভাড়া বৃদ্ধি করতে চেয়েছিলাম। রাজ্য সরকারের ভর্তুকির সিদ্ধান্ত শহর কলকাতার বাস মালিকরা পেলেও গোটা রাজ্যে প্রায় ৪২ হাজার বাস রয়েছে। তারা কিভাবে বাস চালাবে সে বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হল না।

অন্য একটি বাস মালিক সংগঠনের নেতা প্রদীপ বসু জানান, তাঁরা মুখ্যমন্ত্রীর সিদ্ধান্তে অনেকটাই খুশি। কারন তাঁদের দাবী মেনে মুখ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্যসাথী চালু করার কথা বলায় অনেকটাই স্বস্তি পাচ্ছেন কর্মীরা। বাসের কর্মীরা বিভিন্ন কাজে চলে গিয়েছিল। তাঁরা আবার বাসে ফিরতে পারবেন বলে দাবী প্রদীপবাবুর।


No comments