Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

পানীয় জলের অভাব, মায়ের জন্য আস্ত কুয়ো খুঁড়ে তাক লাগিয়ে দিলেন বিএড ছাত্রী মেয়ে !

নিউজ বাংলা ডেস্ক : বয়স বাড়ছে মায়ের। বাড়ি থেকে অনেকটা দূরে গিয়ে জল বয়ে আনতে হয় মা'কে। দিনের পর দিন মায়ের এই কষ্ট আর সহ্য হয়নি মেয়ের। অবশেষে নিজেই কোদাল, বেলচা নিয়ে নেমে পড়েন ময়দানে।ধীরে ধীরে খুঁড়ে ফেলেন আস্ত একটি কুয়ো। আর কিছু…

কুয়ো, নিউজবাংলা, Paschim Burdwan, raniganj, মায়ের জন্য কুয়ো খুড়ল মেয়ে

নিউজ বাংলা ডেস্ক  :  বয়স বাড়ছে মায়ের। বাড়ি থেকে অনেকটা দূরে গিয়ে জল বয়ে আনতে হয় মা'কে। দিনের পর দিন মায়ের এই কষ্ট আর সহ্য হয়নি মেয়ের। অবশেষে নিজেই কোদাল, বেলচা নিয়ে নেমে পড়েন ময়দানে।

ধীরে ধীরে খুঁড়ে ফেলেন আস্ত একটি কুয়ো। আর কিছুটা নীচে নামলেই উঠে আসবে মিষ্টি জল। মেয়ের এহেন কান্ডকারখানা দেখে নিজের চোখের জল আর ধরে রাখতে পারেননি মা। আর নজরকাড়া এমন কান্ড ঘটিয়ে এলাকায় এখন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন মেয়েটি।

ঘটনাস্থল পশ্চিম বর্ধমানের রানীগঞ্জের বল্লভপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বক্তারনগর আদিবাসী পাড়া। মেয়েটির নাম ববিতা সোরেন। বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান নিয়ে এমএ পাশ করেছেন। বর্তমানে গলসি থেকে বিএড করছেন। তবে লকডাউনের জেরে গত কয়েক মাস বাড়িতেই বসে রয়েছেন ববিতা।

দিনের পর দিন চোখের সামনে মা'য়ের জল বয়ে আনার লড়াইয়ে আর হাত গুটিয়ে বসে থাকতে পারেননি ববিতা। ২০১৯ সালে এই কুয়ো খোঁড়ার কাজ শুরু করে মাঝে তা বন্ধ রাখেন। এখন লকডাউনের সময় পুরো দমে আবার কাজ শুরু করেন তিনি। তাঁর এই কর্মকান্ডে সহযোগিতা করে তাঁর দিদিও। মেয়েদের এই কাজে গর্বিত মা মীনা সোরেন।

অন্যদিকে ঘটনাটি জানার পর ববিতার পরিবারকে সহযোগিতার আশ্বাস দেন পশ্চিম বর্ধমানের জেলাশাসক পূর্ণেন্দু মাজী। তিনি জানান, মেয়েটির কাজ অত্যন্ত প্রশংসনীয়। তাঁর আশ্বাস, ওই কুয়ো খোঁড়ার বাকি কাজ জেলা প্রশাসন করবে।

সেই সঙ্গে ববিতা যে সময় ব্যয় করে কুয়ো খুঁড়েছে তারজন্য তাঁকেও নির্দিষ্ট মজুরি দেওয়া হবে। পাশাপাশি ওই এলাকায় পানীয় জলের স্থায়ী সমাধানের জন্য ওয়াটার সাপ্লাই চালু করা যায় কিনা সে বিষয়েও চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে। 


No comments