Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

Breaking ! করোনা আতঙ্ক পূর্ব মেদিনীপুরে, পুলিশ ও স্বাস্থ্য দফতের উদ্যোগে হাসপাতালে ভর্তি ইন্দোনেশিয়া ফেরত ব্যক্তি



নিউজবাংলা ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের থরহরি কম্পমান গোটা বিশ্ব। দিন কয়েক ধরে দেশের রাজধানী শহর দিল্লী ও আশেপাশের এলাকায় এই ভাইরাসে প্রায় ৩০ জন আক্রান্ত হওয়ার খবর মিলেছে। তারই মাঝে প্রথমবার এই রাজ্যের পূর্ব মেদিনীপুর জেলাতেও ছড়াল করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক।



বৃহস্পতিবার বিকেল নাগাদ জ্বরে আক্রান্ত এক ব্যক্তিকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থাকতে পারে সন্দেহ করে কলকাতায় চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে তিনি নিজের ইচ্ছেয় কলকাতায় যেতে চাননি। পুলিশ ও স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা উদ্যোগ নিয়ে ওই ব্যক্তিকে কলকাতায় পাঠিয়েছেন বলে জানা গেছে।



আক্রান্ত ব্যক্তির নাম গোবিন্দ প্রসাদ সাউ (৪৫)। তিনি পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুর থানার বনমালীপুর গ্রামের বাসিন্দা। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গোবিন্দবাবু একটি সংস্থার মাধ্যমে দিন ১৫ আগে ইন্দোনেশিয়ায় বেড়াতে গিয়েছিলেন। বাড়ি ফিরেছেন কয়েকটা দিন হল।

এরপর গত দু'দিন হল গোবিন্দবাবু জ্বর ও কাশিতে ভুগছিলেন। ঘটনাটির খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য দফতরের উদ্যোগে তাকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হল কলকাতায়।




প্রথমে উনি যেতে রাজি হননি। পরে পুলিশ, স্বাস্থ্য দফতরের কর্মী ও প্রশাসনের লোকজন বোঝানোর পর অ্যম্বুলেন্সে চেপে সস্ত্রীক কলকাতার উদ্যেশ্যে রওনা হয়েছেন তিনি। এই ঘটনায় কোনও আতঙ্কের কারণ নেই বলেই স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা জানিয়েছেন। আগাম সতর্কতা হিসেবেই তাঁর শারীরিক পরীক্ষার জন্য গোবিন্দবাবুকে কলকাতায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার স্বাস্থ্য অধিকর্তা নিতাই চন্দ্র মন্ডল জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তি গত ২৪ ফেব্রুয়ারী ইন্দোনেশিয়া থেকে বাড়ি ফিরেছেন। সম্প্রতি তিনি জ্বর ও কাশিতে ভুগছিলেন এবং স্থানীয় হাতুড়ে চিকিৎসকদের কাছেই ওষুধ খাচ্ছিলেন।



ঘটনার জানার পরেই ভগবানপুরের ব্লক স্বাস্থ্য অধিকর্তা, সহ জয়েন্ট বিডিও ওই ব্যক্তির বাড়িতে ছুটে যান। তবে তিনি কলকাতায় চিকিৎসার জন্য মোটেই রাজি ছিলেন না। অনেক প্রচেষ্টার পর একপ্রকার জোর করেই ওই ব্যক্তিকে নিয়ে কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করা হয়েছে।

নিতাইবাবু আরও জানিয়েছেন, আগামীকাল শুক্রবার সমস্ত চিকিৎসকদের নিয়ে তমলুকে জেলা শাসকের দফতরে একটি জরুরি বৈঠকে বসা হচ্ছে। যেখানে জেলার সমস্ত হাসপাতালের চিকিৎসক থেকে শুরু করে চিকিৎসা পরিষেবায় যুক্ত ব্যক্তিরা উপস্থিত থাকবেন।



শুধু তাই নয়, পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে শুক্রবার বিকেল ৩টের সময় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। যেখানে উপস্থিত থাকবেন জেলা শাসক, পুলিশ সুপার সহ জেলা স্বাস্থ্য অধিকর্তাও।

নিতাইবাবু জানিয়েছেন, অযথা করোনা নিয়ে কোনও মানুষ যাতে বিভ্রান্ত না হন বা কি ভাবে এই রোগের উপসর্গ বোঝা যাবে এবং কিভাবেই বা এই রোগের মোকাবিলা করা যাবে সেই বিষয়ে বৈঠকে উপস্থিত সবাইকে অবগত করানো হবে।





No comments