Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

উপনির্বাচন ২০১৯ : খড়্গপুরে শেষ বেলায় তারকা প্রচারে জোর তৃণমূলের !



পার্থ খাঁড়া, নিউজবাংলা ডেস্ক : ভোটের আর মাত্র হাতে গোনা আর দুদিন বাকি। তার আগেই শুক্রবার শেষ বেলার প্রচারে সরগরম হয়ে উঠল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়্গপুর বিধানসভা কেন্দ্র এলাকা।

এদিন তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকারের প্রচারে এদিন সামিল হয়েছেন অভিনেত্রী তথা তৃণমূল সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। এদিন খড়্গপুর এলাকায় এসে তৃণমূল সরকারের নানান উন্নয়নমূলক কাজ সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরেন তিনি।



তাঁর মন্তব্য, ভোট দিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কে দেখে। বুলবুল হলে উনিই আসেন। ভিন রাজ্যে গিয়ে কোনো শ্রমিকের মৃত্যু হলে উনিই পরিবারের পাশে দাঁড়ান। কে ভোটে দাঁড়ালেন, তৃণমূল কাকে প্রার্থী করলো তা নিয়ে না ভেবে দিদির কথা ভেবে ওনাকেই ভোট দিন।

শুক্রবার অগ্রহায়ণের পড়ন্ত বিকেলে খড়্গপুরের ঠাকুরচকে সভা মঞ্চ থেকে যখন কথাগুলো বলছিলেন বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী তখন নিচের ঠাসা ভিড় ছিল চুপ। তিনি তৃণমূল সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। যাঁরা তাঁকে কটাক্ষ করে বলতেন উনি সংসদে গিয়ে কি করবেন তাঁদের মোক্ষম জবাব দিয়ে সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে তাঁর বক্তব্যে নজর কেড়েছেন।


২৫ নভেম্বর খড়্গপুরে উপনির্বাচন। শুক্রবার তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকারের সমর্থনে খড়্গপুরের ৫ টি এলাকায় সভা করেন  সবকটি সভাতেই ছিল উপচে পড়া ভিড়। সাংসদ অভিনেত্রীকে মোবাইলের ক্যামেরায় বন্দি করতে হুড়োহুড়ি করেন কলেজ পড়ুয়া থেকে গৃহবধূরা।

মিমিকে বলতে শোনা যায়, 'আমি অভিনেত্রী হিসেবে যতটা না পরিচিতি পেয়েছি এর থেকে দ্বিগুন পরিচিতি পেয়েছি সাংসদ হয়ে। এটা হয়েছে দিদির জন্যই।' তিনি অভিনেত্রী হয়েও নিজের সংসদ এলাকার মানুষের জন্য সমান ভাবে সময় দেন। প্রতিনিয়ত উন্নয়নের জন্য কাজ করেন। নিয়মিত সংসদ কার্যালয়ে যান। কাজের মূল্যায়ন করেন।



তাঁকে বলতে শোনা যায়, 'আমি কাজে বিশ্বাস করি। তাই খড়্গপুরে আসার আগে হোম ওয়ার্ক করে জানতে পারি প্রদীপ সরকার এখানে প্রচুর কাজ করেছেন।' বিরোধী দের উদ্দেশ্যে বলেন, 'ওরা বড় বাজেট নিয়ে ভোটে লড়তে নামে। আর তৃণমূলের বাজেট হলো বক্তব্য , ভালোবাসা, উন্নয়ন আর মানুষের পাশে দাঁড়ানো'




এদিকে এদিন রাতে খড়্গপুরের কয়েকটি এলাকায় সভা করেন তৃণমূল সাংসদ শিশির অধিকারী। তিনি কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের কঠোর সমালোচনা করেন। যিনি সাড়ে তিন বছর বিধায়ক থেকে খড়্গপুরের জন্য কিছু ভাবেন না, কোনো কাজ করেন না খড়্গপুরের তাঁকে দেখে একটিও ভোট নয় বলেই জানিয়েছেন তিনি।




No comments