Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

NRC করে রোহিঙ্গা মুসলিমদের বেছে বেছে ফেরৎ পাঠাব : দিলীপ ঘোষ



নিউজবাংলা ডেস্ক : অসমে এনআরসি চালু হওয়ার পর থেকেই জন্ম নিয়েছে বহু বিতর্ক। এই মুহূর্তে অসমে শাসকদলের বহু নেতামন্ত্রীই এনআরসি'র চূড়ান্ত তালিকা বাতিল করার দাবী জানিয়েছেন। প্রায় ১৯ লক্ষ মানুষের নাম বাদ পড়েছে তালিকা থেকে। যেখানে বহু ক্ষেত্রেই দেখা গেছে দাদু-ঠাকুমা'র নাম তালিকায় এলেও তাঁদের ছেলে মেয়ে-নাতি নাতনিদের নাম নেই।



কারও আবার স্বামী ও ছেলে মেয়ের নাম উঠলেও স্ত্রী'র নাম তালিকায় ওঠেনি। এনআরসি চালু করার পর যে সমস্ত মানুষের নাম তালিকা থেকে বাদ পড়েছে তাদের অধিকাংশই বাঙালি হিন্দু। এই নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হচ্ছে গোটা অসম জুড়ে। এবার সেই এনআরসি এই বাংলায় চালু করার জন্য মরিয়া বিজেপি নেতৃত্বরা।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সংবাদমাধ্যমে দাবী করেছেন, একাধিক মুসলিম দেশ থেকে রোহিঙ্গারা এদেশে প্রবেশ করে বাংলায় ঘাঁটি গেড়েছে। তাঁরাই আবার গোপনে সন্ত্রাসে মদত দিচ্ছে। তাই এনআরসি করে এই সমস্ত রোহিঙ্গা মুসলিমদের চিহ্নিত করে তাদের দেশ থেকে বিতাড়ন করতে হবে। তাহলে অসমে যাদের নাম বাদ পড়ল তালিকা থেকে তারাও কি রোহিঙ্গা, উঠছে সেই প্রশ্নও।



অন্যদিকে সংসদের বাইরে দাঁড়িয়ে বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় প্রশ্ন তুলেছেন, এই রাজ্যে এনআরসিতে কেন বাধা দেওয়া হচ্ছে। যারা মুসলিম দেশগুলোতে অত্যাচারিত হয়ে এসেশে এসেছেন তাঁরা শরণার্থী। কিন্তু যে সমস্ত মুসলিম পরিবার বর্ডার টপকে এই দেশে এসে বসবাস করছে, চোরাই পথে আধার ভোটার বানিয়ে নিয়েছে তাদের চিহ্নিত করে দেশ থেকে বের করতে হবে।




যদিও বিজেপি নেতাদের এই দাবী কিছুতেই মানতে রাজি নয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, যতদিন তিনি ক্ষমতায় থাকছেন ততদিন এই রাজ্যে এনআরসি চালু করতে দেবেন না। তাঁর মতে, মানুষকে ধর্মের ভিত্তিতে বিভাজন করার চেষ্টা চলছে। কোনও মানুষকে এনআরসি'র নাম করে ঘরছাড়া করা হবে এটা তৃণমূল কিছুতেই মেনে নেবে না।




No comments