Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রতি বঞ্চনা অব্যাহত, প্রতিবাদে নভেম্বরেই জোরাল আন্দোলনের ইঙ্গিত দিল UUPTWA !

নিউজবাংলা ডেস্ক, কলকাতা : অশনি সংকেত অপেক্ষা করছে প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য। গত ১লা অক্টোবর ২০১৯ নবান্ন থেকে পে কমিশন-এর একটি রেজোলিউশান-এ পে কমিশনের এফেক্ট সমস্ত সরকারী কর্মচারী, হায়ার সেকেন্ডারী এডুকেশান, সেকেন্ডারী এডুকেশান ও মা…


নিউজবাংলা ডেস্ক, কলকাতা : অশনি সংকেত অপেক্ষা করছে প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য। গত ১লা অক্টোবর ২০১৯ নবান্ন থেকে পে কমিশন-এর একটি রেজোলিউশান-এ পে কমিশনের এফেক্ট সমস্ত সরকারী কর্মচারী, হায়ার সেকেন্ডারী এডুকেশান, সেকেন্ডারী এডুকেশান ও মাদ্রাসা এডুকেশানের জন্য বরাদ্দ হয়েছে।




কিন্তু কোনও এক অজ্ঞাত কারনে সেখানে প্রাথমিক শিক্ষকদের বিষয়ে কোনও উল্লেখ নেই। এই ঘটনা নিছকই অনিচ্ছাকৃত ভুল নাকি এর পিছনে রয়েছে গভীর ষড়যন্ত্র? এমনই প্রশ্ন তুলে এবার সোচ্চার হল প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগঠন উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারী টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশান (UUPTWA)।


এর বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে সংগঠনের তরফে শিক্ষাদপ্তরে আবেদন জমা দেওয়া হয়েছে! পাশাপাশি এই বঞ্চনার বিরুদ্ধে এখনই গর্জে ওঠার ডাক দিল সংগঠনটি। আর তা না হলে অদূর ভবিষ্যতে প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য চূড়ান্ত অশনিসংকেত অপেক্ষা করছে বলেও মনে করছে সংগঠনটি।



আর এই কারনেই নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকে প্রাথমিক শিক্ষকদের দাবী আদায়ে পুনরায় পথে নামার জন্য প্রস্তুত থাকতে বলেছে প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগঠনটি। সংস্থার রাজ্য সম্পাদিকা পৃথা বিশ্বাস, রাজ্য সভাপতি সন্দীপ ঘোষ একটি বিবৃতি প্রকাশ করে জানিয়েছেন, এই রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকরা দীর্ঘদিন ধরেই বঞ্চনার শিকার।

আরও পড়ুন - UUPTWA-এর প্রথম রাজ্য সম্মেলনে উঠল আওয়াজ "চাই ফিটমেন্ট ফ্যাক্টর সহ ন্যায্য বেতন", নয়তো চরম আন্দোলনের হুঁশিয়ারি !

তাঁদের দাবী, গত ২৬ জুলাই প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধি সংক্রান্ত যে G.O.টি প্রকাশ করা হয়েছিলো তার প্রেক্ষিতে শুধুমাত্র ১০০০টাকা গ্রেড পে বৃদ্ধি করা হয়েছে। কিন্তু সঠিক ফিটমেন্ট ফ্যাক্টর প্রদানের জন্য সবরকম তথ্যসমৃদ্ধ কাগজপত্র প্রদান করা সত্ত্বেও সে বিষয়ে কোনও ব্যবস্থাই নেওয়া হয়নি।




এই বিষয়ে স্পষ্ট তথ্য জানিয়েছে শিক্ষামন্ত্রীর দফতর। বুধবারই শিক্ষামন্ত্রীর পার্সোনাল সেক্রেটারির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন উস্থির নেতৃত্বরা। সেখানেই উপরোক্ত বিষয়গুলি জানা গিয়েছে বলে UUPTWA নেতৃত্বরা জানিয়েছেন। তাঁদের দাবী, এভাবে চলতে থাকলে প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রতি বঞ্চনার অবসান কিছুতেই হবে না।


এরই পাশাপাশি প্রাথমিক স্কুলের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা পরিচালনা করতে গিয়ে শিক্ষকদের থেকে যেভাবে গায়ের জোরে চাঁদা আদায় করা হত তাও পুরোপুরি বন্ধের দাবী জানিয়েছে সংগঠনটি। পাশাপাশি রাজ্য সরকার প্রাথমিক শিক্ষকদের বিষয়ে এভাবে উদাসীন থাকলে নভেম্বরেই পথে নামাতে প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রস্তুত থাকার জন্য আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি।.


No comments