Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

গত ৯ মাসে ২ হাজার বার সংঘর্ষ বিরতি লংঘন করেছে পাকিস্তান, খুন হয়েছেন ২১ ভারতীয় !



নিউজবাংলা ডেস্ক : সংযম দেখিয়ে চলেছে ভারত। তারপরেও পাকিস্তানের তরফে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর সংঘর্ষবিরতি লংঘন করে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটছে প্রতিনিয়ত। ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী, গত জানুয়ারী থেকে এই পর্যন্ত পাকিস্তানের তরফে ২ হাজার বার-এরও বেশী বার সংঘর্ষ বিরতি লংঘন করেছে পাকিস্তানি সেনারা।



আর পাকিস্তানের তরফে বিনা প্ররোচনায় ছোঁড়া গুলির ঘায়ে এখন পর্যন্ত প্রায় ২১ জন ভারতীয়র মৃত্যু হয়েছে বলেও রিপোর্টে জানা গিয়েছে। এমনই তথ্য প্রকাশ্যে এনেছেন ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার।


তাঁর দাবী, পাকিস্তানের তরফে সীমান্ত দিয়ে বারে বারে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চলছে। আর সেই কারনেই বারে বারে এদেশের সাধারণ গ্রামবাসী ও ভারতীয় আউট পোষ্টগুলিকে টার্গেট করে গুলি ছুঁড়ছে পাকিস্তানি সেনা।

তাঁর মতে এখন পর্যন্ত পাকিস্তানের তরফে ২০৫০ বার সংঘর্ষ বিরতি লংঘন করা হয়েছে। প্রসঙ্গতঃ ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে ২০০৩ সালে সংঘর্ষ বিরতির চুক্তি হয়েছিল। বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্রের দাবী, এই সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি মেনেই ভারত এখনও সংযম দেখিয়ে যাচ্ছে।

পাশাপাশি পাকিস্তানকেও এই চুক্তি স্মরণ করিয়ে তাঁদের সংযত থাকার বার্তা দেওয়া হচ্ছে। তবে সে সবের তোয়াক্কা না করেই পাকিস্তান বারে বারে অবৈধ জঙ্গী অনুপ্রবেশ ঘটানোর লক্ষ্যে সংঘর্ষ বিরতি লংঘন করছে।



তবে ভারতীয় সেনা বাহিনীও এক্কেবারে মুখ বুজে বসে নেই। গত ১০-১১ সেপ্টেম্বর নাগাদ ভারতীয় সেনাবাহিনীর ছোঁড়া গুলিতে এক পাকিস্তানি সেনার মৃত্যু হয়েছে উপত্যকা এলাকায়। পাকিস্তানের মাটিতে থাকা সেই মৃতদেহ তুলতে গিয়ে দফায় দফায় গুলি চালিয়ে ভারতীয় সেনা বাহিনীকে আক্রমণ চালিয়েছে তারা।

তবে ভারতীয় সেনা বাহিনীর প্রত্যুত্তরে আরও এক পাক সেনার মৃত্যু হয়। ভারতীয় সেনা বাহিনী দ্রোণ ক্যামেরা ব্যবহার করে সেই মৃতদেহ দুটির ছবি প্রকাশ্যে নিয়ে আসে। এরপর পাকিস্তান রীতিমতো ভারতীয় সেনার কাছে মাথা নত করে মৃতদেহদুটি তুলতে সাদা পতাকা তুলে ঘটনাস্থলে আসে।




সেনা জওয়ানদের মৃতদেহকে সম্মান জানিয়ে পাকিস্তানের সাদা পতাকার বার্তাকে ভারতীয় সেনা বাহিনীর জওয়ানরা মর্যাদা দিয়ে গুলি চালানো বন্ধ রাখে। তারপরেই পাক সেনারা মৃতদেহদুটিকে উদ্ধার করতে সমর্থ হয়েছে। 




No comments