Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

পুলিশ পরিচয়ে দু'দশক ধরে একাধিক যুবতীকে বিয়ে করে অবশেষে শ্রীঘরে ঠাই হল মূর্তিমানের !



নিউজবাংলা ডেস্ক : নিজের মোবাইলে পুলিশের পোষাকে ছবি তুলে দু'দশকে প্রায় ৭জন মহিলাকে বিয়ে করে তাঁদের জীবন নষ্ট করেছে এক প্রতারক ব্যক্তি। শুধু তাই নয়, একটি টেলিমার্কেটিং সংস্থা খুলে ছেলেকে অসুস্থ দেখিয়ে বাজার থেকে প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা তুলেছে অভিযুক্ত।

এছাড়াও টেলি মার্কেটিং সংস্থায় কর্মরত মহিলাদের মধ্যেও বেশ কয়েকজনকে যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে এই প্রতারকের বিরুদ্ধে। তবে শেষ পর্যন্ত টেলি মার্কেটিং সংস্থায় কর্মরত এক যুবতীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতেই গিয়েই এই কুকীর্তির পর্দাফাঁস হয়ে যায়।



ওই প্রতারকের নাম রাজেশ পৃথ্বী ওরফে দীনেশ (৪২)। নিজেকে চেন্নাই পুলিশের এনকাউন্টার স্পেশালিস্ট পরিচয় দিয়ে এতগুলো মহিলার সঙ্গে বিয়ের নামে প্রতারণা করেছে ওই যুবক। অভিযুক্ত যুবকের কাছ থেকে জাল আধার কার্ড, ভোটার কার্ড, প্যান কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই ব্যক্তি এর আগেও একবার পুলিশের জালে ধরা পড়েছিল। তবে পরে পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে যায় সে। এরপর জামিন নিয়ে এলাকা বদলে ফেলে সে।



তারপরেই সবার চোখের আড়ালে একের পর এক মহিলাকে প্রতারিত করে বিয়ে করতে থাকে অভিযুক্ত ব্যক্তি। বছর দুয়েক আগে চেন্নাইয়ের এমএম রোডে একটি টেলিকলার অফিস খুলে বসে অভিযুক্ত, যেখানে কাজ করছিল ২২ জন তরুণী।

সেখানকারই এক যুবতী হঠাৎ করে গায়েব হয়ে যান এবছরের জুন মাসের শেষদিক নাগাদ। তাঁর বাবা ও মা মেয়েকে খুঁজে না পেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ্য হন। এরপরেই ঘটনার তদন্তে নেমে সমস্ত কুকর্মের পর্দা ফাঁস হয়ে গিয়েছে। ইতিমধ্যে অভিযুক্ত যুবকের বিরুদ্ধে একাধিক জায়গায় মামলা করেছেন প্রতারিত মহিলারা।




সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই এখন শ্রীঘরে পাঠানো হয়েছে অভিযুক্তকে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, গত ২ বছরে নিজের সংস্থার প্রায় ৬ মহিলাকে যৌন হেনস্থা করেছে বলেও তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। 




No comments