Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

HPL কারখানায় আগুনে ঝলসে কর্মী মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষোভ বাড়ছে অন্দরে, দিনভর বিক্ষোভ !




নিউজবাংলা ডেস্ক :  গত শুক্রবার হলদিয়া পেট্রোকেমিক্যালস কারখানার ভেতর ন্যাপথা ইউনিটের কমপ্রেসারে আপৎকালীন মেরামতির কাজ করতে গিয়ে মারাত্মক অগ্নিকান্ডে ঝলসে গিয়েছিলেন ১৩ জন কর্মী। যার মধ্যে বেশ কয়েকজন স্থায়ী কর্মী রয়েছেন, এবং কয়েকজন অস্থায়ী কর্মীও রয়েছেন।



আহতদের উদ্ধার করে কলকাতায় চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হলেও বুধবার কারখানার স্থায়ী কর্মী মহিষাদলের যুবক সৌগত সামন্তের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাঁর দেহ বাড়িতে আসে। এবং গভীর রাতে দেহটি সৎকার করা হয়েছে।

এই ঘটনার পরেই ধৈর্যের বাঁধ ভেঙেছে কারখানার কর্মীদের মধ্যে। শুক্রবার সকাল থেকে কারখানার অ্যাডমিনিস্ট্রেশান বিল্ডিংয়ের সামনে মৃত কর্মীর ছবি নিয়ে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন স্থায়ী কর্মীদের একাংশ।

তাঁদের দাবী, কারখানার যে জায়গায় মেরামতির কাজ শুরু হয়েছিল সেটা অত্যন্ত বিপজ্জনক জায়গা ছিল। সেই জায়গায় অনেকদিন ধরেই সাটডাউনের কাজ হয়নি বলে অভিযোগ। অথচ সেখানেই এতগুলো কর্মীকে উপযুক্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা ছাড়াই কাজে পাঠানো হল। এর জন্য যারা দায়ী তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন - হলদিয়া পেট্রোকেমের কম্প্রেসারে মেরামতি চলাকালীন ভয়াবহ অগ্নিকান্ড, জখম একাধিক !


পাশাপাশি আগামী দিনে কারখানার কোনও কর্মীকে যাতে এভাবে অকাল মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে না হয় তা নিশ্চিত করারও দাবী তোলেন কর্মীরা। তবে এই বিষয়ে কর্মীদের তরফে কোনও বক্তব্য জানা যায়নি।



তবে INTTUC-এর পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কার্যকরী সভাপতি শিবনাথ সরকার জানিয়েছেন, কারখানার শ্রমিকদের সুরক্ষার বিষয়টিকে সব থেকে বেশী করে প্রাধান্য দিতে হবে। তিনি জানিয়েছেন, শুক্রবার কারখানার কর্মীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ওপর তলার আধিকারীকেরা সরাসরি কথা বলেছেন।

আরও পড়ুন - হলদিয়া পেট্রোকেমে ঝলসে যাওয়া মহিষাদলের যুবকের মৃত্যু !


কর্মীদের দাবী মেনে ইতিমধ্যে গত শুক্রবারের অগ্নিকান্ডের ঘটনার জন্য তদন্ত কমিটি গঠন করে তদন্ত শুরু হয়েছে। সেই সঙ্গে কারখানায় একজন আধিকারীককে নিযুক্ত করা হচ্ছে। যিনি আগামী কালই কারখানায় এসে কর্মীদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলবেন।




ওই আধিকারীক কারখানার সমস্ত বিষয়ে কর্মীদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ রেখে চলবেন। এবং কোন জায়গায় সমস্যা রয়েছে সে দিকগুলি গুরুত্ব সহকারে দেখবেন। তিনি জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে কলকাতায় সেদিনের ঘটনায় আহত ১২ জনের চিকিৎসা চলছে। তাঁরা দ্রুত সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে না আসা পর্যন্ত সকলেই দুশ্চিন্তার মধ্যে রয়েছেন।

এদিনের বিক্ষোভের ঘটনাকে তিনি বিচ্ছিন্ন ঘটনা হিসেবেই দাবী করেছেন। শিবনাথবাবুর দাবী, সদ্য এক সহকর্মীকে হারিয়ে বাকী কর্মীরা যথেষ্টই শোকাহত। এখনও ১২ জন চিকিৎসাধীন। তাঁদের পরিবার সহ সকলেই উৎকণ্ঠার মধ্যে দিয়ে কাটাচ্ছেন। তারই বহিঃপ্রকাশ আজকের বিক্ষোভ বলে জানিয়েছেন তিনি।



তবে কর্মীদের একাংশের দাবী, স্থায়ী কর্মী এবং অস্থায়ী কর্মীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে আলাদা ব্যবস্থা করা হয়েছে। সকলকেই সমান চিকিৎসার সুযোগ দেওয়ার দাবীও জানিয়েছেন এদিনের বিক্ষোভকারীরা।





No comments