Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

বিজেপি পোষিত সরকারী কর্মচারী পরিষদে যোগ দিলেন একদা তৃণমূল সংগঠনের দাপুটে নেতা সঞ্জীব পাল !


নিউজবাংলা ডেস্ক, কলকাতা : কিছুদিন আগেই নবান্নের অলিন্দে দাঁড়িয়ে রাজ্য সরকারী কর্মীদের বঞ্চনার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে রাজ্য জুড়ে শোরগোল ফেলে দিয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থিত পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারী কর্মচারী ফেডারেশনের তৎকালীন শীর্ষ নেতা সঞ্জীব পাল।

যার জন্য তাঁর কপালে জুটেছিল সুদূর আলিপুরদুয়ারে বদলী। সেই সঙ্গে সরকার তৃণমূল পোষিত কর্মচারী ফেডারেশানের পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়। তবে এতেও তিনি দমবার পাত্র নন। নতুন করে লড়াইয়ে সামিল হতে মঙ্গলবার তিনি যোগ দিলেন বিজেপি পোষিত সরকারী কর্মচারী পরিষদে।



এদিন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু এবং সরকারী কর্মচারী পরিষদের আহ্বায়ক দেবাশিষ শীলের হাত ধরে নতুন ভাবে লড়াইয়ের শপথ নিয়েছেন তিনি। শুধু তিনি নয়, তাঁর নেতৃত্বে সচিবালয়ের বেশ কিছু নেতা কর্মী আজ সরকারী কর্মচারী পরিষদে যোগদান করেন।

দেবাশিষবাবু জানান, রাজ্য সরকারের কর্মীরা দীর্ঘদিন ধরেই বঞ্চিত। ন্যাহ্য ডিএ দেওয়া হচ্ছে না, পে কমিশন নিয়েও কোনও হেলদোল নেই সরকারের। আর তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গিয়েই রাজ্য সরকারের কোপে পড়ে যান পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারী কর্মচারী ফেডারেশনের কোর কমিটির সদস্য এবং শীর্ষ নেতা সঞ্জীব পাল।



সঞ্জীব পাল জানিয়েছেন, "বিগত দিনগুলিতে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বেতন-ভাতা-পদোন্নতি-পোস্টিং সহ যে কোন স্বার্থ রক্ষায় প্রতিনিয়ত লড়াই চালিয়ে গিয়েছি। এবং এই লড়াইয়ে সমস্ত রাজ্য সরকারী কর্মীদের প্রত্যক্ষ সমর্থন, অংশগ্রহণ ও সহযোগিতা পেয়েছি। এবার নতুন করে আন্দোলন, বিপ্লবকে লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতেই সরকারী কর্মচারী পরিষদের ছাতায় তলায় এসেছি"।  

বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুর দাবীন, এই রাজ্যে কোনও আইনের শাসন নেই। কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিলের খুশীতে জাতীয় পতাকা হাতে পথে নামায় বিজেপি কর্মীদের মারধর, গ্রেফতার করা হয়েছে। পশ্চিম মেদিনীপুরে মিথ্যে মামলা দেওয়ার প্রতিবাদে পথে নেমে আক্রান্ত হয়েছে বিজেপি কর্মীরা। সরকারী কর্মীদের বঞ্চনার তালিকা এই রাজ্যে দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হয়েছে।




আর কেউ তার প্রতিবাদ করলেই তাঁদের দূর দূরান্তে বদলী করে দেওয়া হচ্ছে। এর একটা শেষ আছে। তিনি জানান, সঞ্জীব বাবুর মতো যারা আন্দোলনে বিশ্বাসী তাঁরা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি পোষিত সরকারী কর্মচারী পরিষদের ছাতায় তলায় আসছেন। সবার মিলিত আন্দোলনের ফলে এই সরকারের পতন অবশ্যম্ভাবী বলে দাবী জানিয়েছেন তিনি। 

No comments