Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

শালবনিতে তৃণমূল কর্মীকে শাসানি, "ঘর থেকে বেরলে শেষ করে দেব" !


পার্থ খাঁড়া, নিউজবাংলা (পঃমেদিনীপুর) : "তোমাকে লাস্ট ওয়ার্নিং দিচ্ছি, ঘর থেকে যদি বেরাও তা হলে শেষ করে দেব বলে দিলাম"। হাতে মোটা মোটা কাঠের বাটাম ধরে এক তৃণমূল কর্মীকে ঘিরে রেখে এভাবেই শাসাচ্ছে একাধিক হোমরা চোমরা মার্কা যুবক।

আর তাদের সামনে বসে নিরুপায় তৃণমূল কর্মী নিজের কান ধরে স্বীকারোক্তি দিলেন, "আর আর কখনও ঘর থেকে বেরাবনি, কথা দিছি বেরাবনি"। তবে এই স্বীকারোক্তিতেই থেমে থাকেনি ওই যুবকরা। ফিরে যাওয়ার আগে তৃণমূল কর্মীকে তাঁরা হুঁশিয়ারি দিয়ে যায়, "কেশটা উঠে যাওয়ার পর তোমাকে যে কি মার হবে দেখে নেবে"।



ঘটনাস্থল পশ্চিম মেদিনীপুরের শালবনি থানার চকতারিনী এলাকায়। যে তৃণমূল কর্মীকে এভাবে শাসানো হয়েছে তাঁর নাম স্বপন ঘোষ। এই শাসানি দেওয়ার ঘটনা আবার ভিডিও রেকর্ডিং করে তা ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সর্বত্র। 

দেখুন এক্সক্লুসিভ ভিডিওটি-
 

যে যুবক ওই তৃণমূল কর্মীকে শেষ করে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছিল সে আবার ক্যামেরাম্যানকে "এদিকে ঘুরা" বলে নিজের ছবিও তুলতে বলে। এরই পাশাপাশি ওই তৃণমূল কর্মীকে কাটমানি খাওয়ার জন্যও শাসানো হয়। যদিও তৃণমূল কর্মী সাফ জানিয়ে দেন, কেউ যদি প্রমাণ করতে পারে তাহলে যত টাকা বলা হবে ততটাই তুলে দেবেন ওই যুবকদের হাতে।



স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, গত কয়েকদিন ধরে এভাবেই গোটা এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে বিজেপির যুব বাহিনী। যারা এলাকার তৃণমূল নেতা কর্মীদের অজ্ঞাত স্থানে তুলে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করে দল ছাড়ার জন্য বাধ্য করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।




কয়েকদিন আগেই চকতারিনীতে স্থানীয় দোকানদার তৃনমূলের আঞ্চলিক তিন নেতৃত্ব বাপি মোদক, নিরঞ্জন ঘোষ ও পঞ্চা সিং কে বাড়ী ও দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে এভাবেই মারধর করে ও আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় পঞ্চা সিং এর অফিসে। যার জেরে গোটা এলাকায় তৃণমূল কর্মীরা এখন চূড়ান্ত আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। 



No comments