Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

ডিএ মামলার শেষ শুনানিতে আগের রায়ই বহাল রাখল স্যাট, রাজ্য সরকারের গতিবিধি নিয়ে ধোঁয়াশা !



নিউজবাংলা ডেস্ক :  রাজ্য সরকারী কর্মচারীদের কেন্দ্রের হারে ডিএ’র দাবীতে পৃথক ভাবে মামলা করেছিল দুটি সংগঠন। দিন কয়েক আগেই কনফেডারেশন অফ স্টেট গভর্নমেন্ট এমপ্লয়িজ(INTUC)-এর মামলায় স্যাটের আদালত রায় দিয়ে জানিয়েছিল, এই রাজ্যের সরকারী কর্মীদের কনজিউমার প্রাইস ইন্ডেক্স (CPI) অর্থাৎ কেন্দ্রের হারেই বেতন দিতে হবে।

সেই সঙ্গে এই রাজ্যে কর্মরত রাজ্য সরকারী কর্মীদের তুলনায় দিল্লী ও চেন্নাইয়ে কর্মরত এই রাজ্যের সরকারী কর্মীদের যেভাবে ডিএ বৈষম্য তৈরি হয়েছে তা জাস্টিফায়েড নয় বলেই আদালত জানিয়েছিল



বৃহস্পতিবার বিজেপি পোষিত সরকারী কর্মচারী পরিষদের মামলার ক্ষেত্রেও সেই একই রায় বহাল রাখল স্যাট-এর বিচারপতিরা। সরকারী কর্মচারী পরিষদের আহ্বায়ক দেবাশিষ শীল জানিয়েছেন, এই মামলা চলাকালীন রাজ্য সরকার বারে বারে কোষাগারে টাকা নেই বলে উল্লেখ করেছে।

যা একেবারেই সঠিক নয় বলে দাবী জানিয়েছেন দেবাশিষবাবু। তাঁর মতে, আদালতে দীর্ঘ আইনী লড়াইয়ের পর রাজ্য সরকারী কর্মীদেরই জয় হল। এরপর রাজ্য সরকার আদালতের নির্দেশ কার্যকর করবেন এটাই তাঁদের আশা।



দেবাশিষবাবু জানান, এদিন ষ্টেট এডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুনালে সরকারী কর্মচারী পরিষদের মহার্ঘ ভাতা সংক্রান্ত মামলার (O.A.-1231/2016) নিষ্পত্তি হল। এদিন মামলায় রায়দান করেন বিচারপতিদ্বয় শ্রী রনজিৎ কুমার বাগ ও শ্রী সুবেশ দাস।

উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে তাঁরা রায় দেন যে গত ২৬.০৭.২০১৯ তারিখে কনফেডারেশন অব ষ্টেট গভর্নমেন্ট এমপ্লয়িজ এবং ইউনিটি ফোরামের দায়ের করা মামলায় (O.A.-1154/2016) মহার্ঘ ভাতা সংক্রান্ত যে রায় দিয়েছেন সেটা এই মামলতেও প্রযোজ্য হল।




এই রায়দানের ফলে একটা বিষয় পরিষ্কার হয়ে গেল যে আগামীদিনে রাজ্য সরকার যদি ট্রাইবুনালের রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালত তথা সর্বোচ্চ আদালতে যায় তখন সরকারী কর্মচারী পরিষদেরও উচ্চ আদালতে যাওয়ার পথ প্রশস্ত হল।

তবে সব কিছুর জন্য তাঁরা প্রস্তুত বলে দেবাশিষবাবু জানিয়েছেন, ডি এ, পে কমিশনের দাবীতে রাস্তায় নেমে যে আন্দোলন তাও অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি। প্রয়োজনে আবারও বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলতে প্রতিবাদী সংগঠনগুলোর সঙ্গে লাগাতার আলোচনা চলছে বলে তিনি জানিয়েছেন। 

তবে স্যাটের রায়ের পর ডিএ-র বিষয়ে রাজ্য সরকার কোন পদক্ষেপ নেবে তা এখনও পরিষ্কার নয়। যদিও আগেই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছিলেন, তাঁদের কোষাগারের অবস্থা ভালো নয়। তাই রাজ্য সরকার স্যাটের রায়ের পর কোন পথে এগোবে সে দিকেই তাকিয়ে রাজ্যের লক্ষ লক্ষ সরকারী কর্মীচারীরা।




No comments