Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

“বদলীর হিংসার রাজনীতি বন্ধ করুন”, সরকার পোষিত রাজ্য সরকারী কর্মীদের হুঁশিয়ারি যৌথ সংগ্রামী মঞ্চের !



নিউজবাংলা ডেস্ক, কলকাতা :  কাক কাকের মাংস খায় না। কিন্তু এই রাজ্যে কেউ যদি সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খোলেন তবে তাঁকে বদলী করে দেওয়ার ঘৃণ্য রাজনীতি করছেন রাজ্য সরকারী কর্মচারীদের একাংশই। যা শুরু হয়েছে ২০১১ সালে রাজ্যের পালাবদলের পর থেকেই।



কিন্তু এই পরিস্থিতি বেশীদিন চলতে পারেনা বলে সাফ হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যৌথ সংগ্রামী মঞ্চের মুখ্য আহ্বায়ক দেবাশিষ শীল এবং পশ্চিমবঙ্গ সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার এমপ্লয়িজ ফেডারেশানের সাধারন সম্পাদক, রাজ্য আইএনটিইউসি নেতা এবং যৌথ সংগ্রামী মঞ্চের কার্যকরী কমিটির সদস্য সুবীর সাহা।

তাঁদের মতে, ন্যাহ্য দাবীতে সরব হওয়ার জন্য গ্রুপ ডি কর্মীকে নিয়ম বহির্ভূত ভাবে বহু দূরের জেলায় বদলী করে দেওয়া হচ্ছে। অথচ একজন গ্রুপ ডি কর্মী যেহেতু অত্যন্ত কম মাইনে পান তাই তাঁকে সাধারণতঃ বাড়ি থেকে ১৫ কিমির বেশী দূরে অফিসে পাঠানো হয়না।




তবে উঁচুপদের আধিকারীকদের ক্ষেত্রে বদলী প্রয়োজন থাকে। কারন, না হলে সাধারনতঃ দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেওয়া হতে পারে। কিন্তু বর্তমান তৃণমূলের সরকারের আমলে সে সব নিয়মের কোনও তোয়াক্কা করাই হচ্ছে না বলে অভিযোগ জানিয়েছেন সুবীরবাবু।

সুবীরবাবু জানান, রাজ্যের ১২টি সরকারী কর্মচারী সংগঠন মিলে গড়ে তোলা হয়েছে অরাজনৈতিক সংগঠন যৌথ সংগ্রামী মঞ্চ। এই মঞ্চের ছাতার তলায় দাঁড়িয়ে সরকারী কর্মীদের দাবী আদায়ের জন্য লাগাতার আন্দোলন চলতে থাকবে।



তিনি জানানা, রাজ্যের সরকারী কর্মীরা ইতিমধ্যে লোকসভা নির্বাচনে তাঁদের অনাস্থা জানিয়েছে ব্যালটের মধ্যে দিয়ে। রাজ্যের ৪২টি আসনের মধ্যে ৪১টি আসনে সরকারী কর্মচারীদের ভোট তৃণমূলের থেকে বেশী। এর মধ্যে ৩৯টি আসনে বিজেপি, ১টি কংগ্রেস এবং ১টি সিপিএম আর ১টি আসন জিতেছে তৃণমূল।

তবে অমানবিক ভাবে রাজ্য সরকারী কর্মীদের যেভাবে বদলী করা হয়েছে, হয়রানি করা হচ্ছে তার বিরুদ্ধে সার্বিক ভাবে লড়াই চলছে। এরই প্রতিবাদে একাধিক জায়গায় ডেপুটেশান দেওয়া হচ্ছে। আর এই বদলীতে যে সমস্ত সরকারী কর্মীরা মদত দিচ্ছেন তাঁরা সাবধান হয়ে যান বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন সুবীরবাবু।




সুবীরবাবুর হুঁশিয়ারি, সজাগ হোন, সাবধান হোন। সময় থাকতে নিজেদের পরিবর্তন করে ফেলুন। সময় কিন্তু ঘুরে আসে। আজ যারা দায়িত্বে থেকে অন্যদের সঙ্গে বদলীর রাজনীতি করছেন, তাঁদেরও এই একই পরিস্থিতির মুখে পড়তে হতেই পারে। সরকারী কর্মীরা একজোট হয়ে না লড়াই করলে কখনও বঞ্চনার হাত থেকে মুক্তি মেলেনা বলেই দাবী জানিয়েছেন তিনি।




No comments