Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

হলদিয়ায় গভীর রাতে যুবতীকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত সাংবাদিক, কাঁথি আদালতের বাইরে ধর্ষকের ছবি তুলতে বাধা পুলিশের !



নিউজবাংলা ডেস্ক : পূর্ব মেদিনীপুরে পৃথক দুই ঘটনায় আক্রান্ত হল সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধিরা। একদিকে হলদিয়ায় মধ্যরাতে একটি যুবতীকে দুষ্কৃতীদের হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন জনপ্রিয় হিন্দী চ্যানেলের সাংবাদিক এবং জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল "হলদিয়া টিভি"র কর্ণধার তাপস ঘোষ।

শুধু তিনিই নন, সেই সঙ্গে আক্রান্ত হয়েছেন তাঁর ছেলেও। এই ঘটনায় হলদিয়া টাউনশিপ পুলিশ ফাঁড়িতে লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অভিযোগ পেয়েই পুলিশ দুষ্কৃতীদের মধ্যে কয়েকজনকে পাকড়াও করে। তবে এরপর থেকেই শুরু হয়েছে নতুন উৎপাত।



অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পুলিশের খাতায় থাকা অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য ওই সাংবাদিককে আবার চূড়ান্ত হুমকি দেওয়া হচ্ছে। তবে গোটা ঘটনাটি অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন জেলার পুলিশ আধিকারীকরা।

তাপসবাবু জানিয়েছেন, শনিবার রাত্রি প্রায় সাড়ে ১২টা নাগাদ হলদিয়া টাউনশীপের জীবনানন্দ নগর এলাকার রাস্তায় একটি মেয়েকে কয়েকজন দুষ্কৃতী ঘিরে ধরে আক্রমণ করে। ওই মেয়েটির চিৎকার শুনে তাপসবাবু ও তাঁর ছেলে ছুটে বাড়ি থেকে বেরিয়ে এসে তাঁকে উদ্ধার করেন।



সেই সময় দুষ্কৃতীরা ছুটে পালিয়ে গেলেও কিছু সময় বাদেই তাঁরা আবার ফিরে আসে এবং তাপসবাবুর বাড়িতে হামলা চালায়। বাড়ি থেকে বেরিয়ে এলে তাপসবাবু ও তাঁর ছেলের ওপর চড়াও হয় তাঁরা। তাঁকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। পাশাপাশি চলতে থাকে অশ্রাব্য গালিগালাজ। কেন মেয়েটিকে তাঁদের হাত থেকে ছাড়িয়েছে তার জন্য দল বেঁধে চলে হামলা।

তৎক্ষণাৎ তাপসবাবু পুলিশে খবর দিলে হলদিয়া টাউনশীপ পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। পুলিশ এসে অভিযুক্তদের কয়েকজনকে পাকড়াও করে নিয়ে যায়। তারপরেই অভিযুক্তদের ছেড়ে দেওয়ার জন্য তাপসবাবুকে ফোন করে হুমকি দেয় এক ব্যক্তি। এরপরেই পুলিশে গোটা ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তাপসবাবু।  




অন্যদিকে কাঁথি আদালতের বাইরে রবিবার দুপুর নাগাদ এক ধর্ষকের ছবি তুলতে গিয়ে এগরা থানায় কর্মরত এক ভিলেজ পুলিশের হাতে আক্রান্ত হয় একদল সাংবাদিক। যদিও সাধারণ পোষাকে থাকা ওই ভিলেজ পুলিশ সেই সময় ডিউটিতে ছিল না বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

সেই সময় এগরা থানার এক অফিসারও সংবাদ মাধ্যমের কর্মীদের সঙ্গে অপব্যবহার করেন। ঘটনার খবর পেয়েই কাঁথি থানার আইসি সহ একাধিক পুলিশ আধিকারীক আদালত চত্বরে ছুটে আসেন। 

একজন নাবালিকার ধর্ষকের ছবি তুলতে কেন বাধা দিল ওই ভিলেজ পুলিশ, কেন হামলার শিকার হবে সাংবাদিকরা তা জানতে চায় ক্ষুব্ধ সাংবাদিকরা। পরে অবশ্য বিষয়টি আলাপ আলোচনার মাধ্যমে মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে।  




No comments