Page Nav

HIDE

Post/Page

Weather Location

Breaking !

latest

তাবড় সিপিএম নেতা সুশান্ত ঘোষ'কে শোকজ দলের, আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিবিহীন বিপুল সম্পত্তি তৈরির অভিযোগ !



পার্থ খাঁড়া, নিউজবাংলা ডেস্ক : রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী ও একসময়ের গড়বেতার দাপুটে সিপিএম নেতা সুশান্ত ঘোষের বিরুদ্ধে একের পর এক দল বিরোধী ও উপদলীয় কার্যকলাপের অভিযোগ উঠেছে। তাঁর আয়ের সঙ্গে সঙ্গতি বিহীন সম্পত্তির হিসেব চেয়ে এই আয়ের উৎস কি এবং তাঁর বিরুদ্ধে দল কেন ব্যবস্থা নেবে না বা দল থেকে বহিস্কার করা হবে না জানতে চেয়ে 'শোকজ' করা হলো|

যদিও এবিষয়ে শুক্রবার সিপিএমের পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলা সম্পাদক তরুণ রায়ের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, 'এটা দলের আভ্যন্তরীন বিষয়| সংবাদ মাধ্যমকে বলব না|'

প্রসঙ্গতঃ গত ৩ আগস্ট মেদিনীপুরের বিদ্যাসাগর হলে দলের জেলা কমিটির সদস্য, শাখা সদস্য, এরিয়া কমিটির সদস্যদের নিয়ে আলোচনা সভায় তাঁর বিরুদ্ধে একের পর এক দল বিরোধী কাজের অভিযোগ করেন সদস্যরা| সেই সভায় উপস্থিত ছিলেন দলের রাজ্য সম্পাদক ডাঃ সূর্যকান্ত মিশ্র, রাজ্য সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য দীপক দাশগুপ্ত, জেলা সম্পাদক তরুণ রায়।



সুশান্ত ঘোষের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উঠেছে এরমধ্যে রয়েছে এবারের লোকসভা নির্বাচনে তিনি নাকি ঘাটাল কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন। জেলার প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় তাঁর প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা খারিজ হয়ে যায়।

সম্প্রতি চন্দ্রকোনা রোড, গড়বেতার ৬৫০জন পুরাতন পার্টি কর্মীদের নিয়ে বিষ্ণুপুরে গোপনে একটি সভা করেন। একটি নিউজ পোর্টালে ২৬টি কিস্তিতে তিনি ধারাবাহিক ভাবে দলের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে লাগাতার সমালোচনা করেছেন। এতে দলের রাজ্য সম্পাদক থেকে জেলা সম্পাদক, প্রাক্তন জেলা সম্পাদক কেউ বাদ যাননি।



এতে তিনি লিখেছেন মাওবাদী আন্দোলনের সময় গোয়ালতোড়ের একটি পার্টির ক্যাম্প মাওবাদীরা ঘিরে ফেলে| তিনি সেখানেই ছিলেন| মাওবাদীদের ঠেকাতে তিনিও হাতে অস্ত্র তুলে নেন| এতে পার্টি কর্মীদের মনোবল বাড়ে| কিছু পরে যৌথবাহিনী আসলে মাওবাদীরা পালিয়ে যায়|

তাঁর এই কথায় দল বিপাকে পড়েছে| সিপিএম এতদিন বলে আসছে জঙ্গলমহলে তাদের কোনো  ক্যাম্প (পড়ুন হার্মাদ ক্যাম্প) ছিল না| সুশান্ত ঘোষের লেখায় এতে সিলমোহর পড়লো| এরফলে নেতাই কাণ্ডে জেলবন্দী ডালিম পান্ডে, অনুজ পান্ডে, ফুল্লরা মন্ডলদের জামিন পাওয়া মুশকিল হয়ে উঠেছে|




দলকে না জানিয়ে তিনি বিরাট সম্পত্তি করেছেন বলে অভিযোগ। দলের সর্বক্ষণের হোলটাইমার হয়েও এবং তাঁর স্ত্রী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা হওয়ার মাঝেই কলকাতার হরিশচ্যাটার্জি স্ট্রিটে, হাওড়ার শিবপুরে বোটানিক্যাল গার্ডেন এলাকায়, মেদিনীপুরের তাঁতিগেড়িয়ায় ফ্লাট রয়েছে তাঁর, এমনটাই অভিযোগ|

মেদিনীপুরে, চন্দ্রকোনা রোডে, গড়বেতার বেনাচাপড়ায় বিরাট বাড়ি, কয়েক বিঘা জমি রয়েছে তাঁর। এছাড়াও তাঁর দাদার নামে দিঘা ও পুরীতে হোটেল রয়েছে। সম্প্রতি পুরীর হোটেল বিক্রি করেছেন তাঁরা। এসব কোনো তথ্যই পার্টিকে জানাননি সুশান্তবাবু। পার্টি তদন্ত করে সব জানতে পেরেছে|



কলকাতায় অনুষ্ঠিত রাজ্য সম্মেলনে প্রকাশ্যে দলের নেতাদের বিরুদ্ধে বিষোদগার করেন তিনি। ২০১৮ এর পঞ্চায়েত নির্বাচনে গড়বেতায় সেরকম কোনো সন্ত্রাসের পরিবেশ না থাকলেও তিনি কলকাতা থেকে ফোন করে সিপিএমের প্রার্থীদের প্রার্থী পদ প্রত্যাহার করতে বাধ্য করেন। একমাত্র জেলা পরিষদ প্রার্থীও মনোনয়ন প্রত্যাহার করেন।





No comments